শনিবার, ২৫-মে-২০১৯ ইং | রাত : ০১:২৪:২১ | আর্কাইভ

ষাটোর্ধ বৃদ্ধাকে এসিড নিক্ষেপ

তারিখ: ২০১৯-০২-২৪ ০৫:০৬:৩০ | ক্যাটেগরী: সারা দেশ | পঠিত: ৩৭ বার

 

 আলমগীর হোসেন জেলা প্রতিনিধি: দুর্বৃত্তদের এসিড নিক্ষেপে আবুল কাশেমের ( ৬০) শরীল ঝলছে গেছে। এসিড দ্বগ্ধ আবুল কাশেম কে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে সার্জারী (পুরুষ) ওয়ার্ডে  ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার ভোর রাতে আটিয়াতলী গ্রামের আমান উদ্দিন হাজি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। সে মৃত সুলতান আহম্মেদের পুত্র
এসিড দ্বগ্ধ আবুল কাশেম জানায়, এ পযর্ন্ত্র আমাদের পরিবারে উপরে জায়গা- জমি সংক্রান্ত বিষয়কে কেন্দ্র করে চার বার এসিড নিক্ষেপ করে মো: ইউসুপ (৪০), আব্দুল হক (২৯), আব্দুল রহিম ট্রাক ড্রাইভার। আদালতে দায়েল কৃত দেয়ানী মোকদ্দমা নং ৮৩/০৬ আমার অনুকুলে হওয়ায়, আসামীরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে আমার পরিবারের লোকজনকে খুন ,গুম , অপহরন,ও এসিড নিক্ষেপ করে আমাদের ঘর,বাড়ি জ¦ালিয়ে মালিকানা সম্পত্তি জবর দখল করার হুমকী দামকী দিতে থাকে।
এর পর পরিকল্পিত উপায়ে  ২০১৮ সালের ২০ এপ্রিল গভীর রাতে প্লাষ্টিকের বদনায়, ভরা কলসিতে এসিড মিশ্রিত করে রাখে। আমার স্ত্রী মনি বেগম প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিলে ঐ পানি ব্যবহার করলে গোপনাঙ্গ পুড়ে যায় ও খাওয়ার পানি হিসেবে ব্যবহার করলে মুখের অংশ পুড়ে যায় । পরে আহত অবস্থায় লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করি।
১২ ই ডিসেম্বর একই রকম পানিতে এসিড মিশ্রিত করে রাখে আসামীরা ঐ পানি ব্যবহারের পর পুরুষ অঙ্গ পুড়ে যায় এ সময় টয়লেট থেকে চিৎকার দিয়ে বের হলে তারা আমার মাথায় ও মুখে এসিড নিক্ষেপ করতে থাকে। পরে আশে পাশে লোকজন এসে আমাকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে । কর্তব্যরত চিকিৎসক আশংকাজনক দেখে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করেন।
ভুক্তভোগীর স্বজনেরা জানায় গত ১৬ জানুয়ারী ফজরের নামাজের সময় অজু করা অবস্থায় আসামীদের সহযোগীতায় অজ্ঞাত নামা কয়েকজন দলব্ধ হয়ে আমার ঘরের সামনে হুমকী দামকী দিতে থাকে। এক পযার্য়ে আব্দুল হক সাব তার হাতে থাকা তরল এসিড নিক্ষেপ করে এতে আমার স্বামীর মাথায় ও মুখ পুড়ে যায়। পরে স্থানী লোকজন আবুল কাশেম কে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
২০১৯ সালের ২৩ ই ফেব্রুয়ারী শনিবার গভীর রাত ৩ টা প্রবাসী ইউসুপ , আব্দুল হক সাব, আবদুল রহিম ড্রাইভারসহ  তাহাজ্জুদের নামাজের অজু করার সময় আমার স্বামীকে তরল এসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। পরে আহত অবস্থায় লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করি।
লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের জরুলী বিভাগের ডা:জয়নাল আবেদীন জানায় এটি এক ধরনের কেমিক্যাল তরল পদার্থ শরীলের কোনো অংশ পড়লে ত্বক ধীরে ধীরে কালো হইতে থাকে যা ত্বক বির্বণ হইতে পারে। এটি এক ধরনের তরল এসিড।
অপর দিকে আবদুর রহিম ,প্রবাসী ইউসুপ, উল্লেখিত গঠনার সাথে জড়িত নয় বলে জানায়। তারা আরো বলেন, আবুল কাশেমের সাথে আমাদের জায়গা-জমি নিয়ে কোনো দন্ড-সংঘার্ত নেই। শনিবার উল্লেখিত যে ঘটনা ঘটেছে,তা অনাকাঙ্খিত, ঐ রাতে আমার মায়ের ব্রেণ স্ট্রোক করেছে তাকে নিয়ে আমাদের পরিবারের লোকজন ব্যবস্থ ছিলো।
এ বিষয়ে লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকমান হোসেন জানায়,এসিড নিক্ষেপের বিষয়ে আমার জানা নেই, যদি অভিযোগ দেওয়া হয় অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থ নেয়া হবে।

 

তারিখ সিলেক্ট করে খুজুন