বুধবার, ১৭-জুলাই-২০১৯ ইং | বিকাল : ০৪:৫২:১৭ | আর্কাইভ

সারাদেশে বিভিন্ন দলের ১১২ আসনে ভোট বর্জন

তারিখ: ২০১৮-১২-৩০ ০৬:০৭:৩৩ | ক্যাটেগরী: সংসদ নির্বাচন-২০১৮ | পঠিত: ১৪১ বার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১১২ আসনে ভোট বর্জন করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ অন্যান্য দলগুলো। আজ সোমবার পৃথক পৃথকভাবে প্রার্থীরা অভিযোগ প্রকাশ করে ভোট বর্জন করেন।

প্রার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, সকাল থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে ভোট শুরু হওয়ার কথা থাকলেও নির্বাচনের আগের রাতেই ব্যালট বাক্স পূর্ণ করা থেকে শুরু করে অনিয়ম, জালভোট, বিরোধী দলের এজেন্ট গ্রেফতার, ভোটারদের হয়রানিসহ অগণিত অভিযোগ উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সমর্থক ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে। আর এসব অভিযোগকে সামনে রেখে এখন পর্যন্ত ১১২ আসনে ভোট বর্জন করেছেন বিভিন্ন দল, জোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

যেসব আসনে ভোট বর্জনের খবর পাওয়া গেছে তার মধ্যে রয়েছে- ঢাকা-১,১৫,১৭, মাদারীপুর-৩, খুলনা-১, ৩, ৪, ৫ ও ৬, নীলফামারী-২ ও ৩, মুন্সীগঞ্জ-১, ফেনী-১, ২, ও ৩, কুমিল্লা-৯, ১০, ১১, ঠাকুরগাঁও-২, গাইবান্ধা-১,৪,৫, যশোর-১, ৪ ও ৫, চট্টগ্রাম-৪, ১৫, কক্সবাজার-১, ২, ঝিনাইদহ-১(শৈলকূপা), নোয়াখালী-২, লক্ষ্মীপুর-৩, টাঙ্গাইল-১(মধুপুর-ধনবাড়ি), ২(ভূঞাপুর-গোপালপুর), ৩-(ঘাটাইল), ৬-(নাগরপুর-দেলদুয়ার), ৮-(সখিপুর-বাসাইল), হবিগঞ্জ-৪, জামালপুর ২,৩, শেরপুর-১, ২, ৩, নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ), ময়মনসিংহ- ৩,৫,৬,৯,১১ শরীয়তপুর-২ , ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬, বরিশাল-০৪, সাতক্ষীরা-১, ২, ৩, ৪, সিরাজগঞ্জ-১,২,৩,৪,৫,৬, খাগড়াছড়ি-১।

এছাড়াও ফরিদপুর- ২, ৩, রাজবাড়ী-১, ২, গাজীপুর-৫, যশোর-৪, রাজশাহী ৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩, বগুড়া-৫, পাবনা-৪, বাগেরহাট-৩,৪, নাটোর-১,২,৩, নওগাঁ-২, আসনেও ভোট বর্জন করেছেন প্রার্থীরা।

নির্বাচন বয়কট করা প্রার্থীদের মধ্যে বেশির ভাগই ২০ দলীয় জোট কিংবা ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী। এর বাইরে আছেন ঢাকা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান সংসদের এমপি সালমা ইসলাম ও যশোর -৪ আসনের জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মো. জহুরুল হক। টাঙ্গাইল ৮-(সখিপুর-বাসাইল) আসনের জাতীয় পার্টি প্রার্থী কাজী আশরাফ হোসেন নির্বাচন বর্জন করেন। খুলনা-১ আসনের মহাজোটের শরীক দল জাতীয় পার্টির প্রার্থী সুনীল শুভরায় ভোট বর্জন করেছেন।

ফেনী-২ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক জয়নাল আবদীন ভিপি অভিযোগ করেন, সদর আসনের ১২৬টি ভোট কেন্দ্রের কোথাও ধানের শীষের এজেন্টকে কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি।

খেলাফত মজলিশের মহাসচিব অধ্যাপক আহমেদ আব্দুল কাদির (হবিগঞ্জ-৪), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমীর সৈয়দ ফয়জুল করিম (বরিশাল-৫), বিজেপির চেয়ারম্যান আন্দালিভ রহমান পার্থ (ঢাকা-১৭), সিপিবি নেতা আহম্মদ সাজেদুল হক (ঢাকা-১৫), বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী জোনায়েদ আব্দুর রহিম সাকি (ঢাকা-১২) ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মুজিবুর রহমান সেন্টুসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দলের প্রার্থী ভয়াবহ অনিয়মের অভিযোগে ভোট বর্জন করেছেন। এছাড়া বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে ভোট বর্জনের কথা জানিয়েছে। দলটির পক্ষ থেকে ২২ জন নির্বাচনে লড়াই করেছেন ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে। আর ৪টি আসনে জামায়াতের প্রার্থীরা লড়াই করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে।

তারিখ সিলেক্ট করে খুজুন