বুধবার, ১৭-জুলাই-২০১৯ ইং | বিকাল : ০৪:১৭:১৭ | আর্কাইভ

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচে গ্যালারিতে বাংলাদেশের চার কিশোর

তারিখ: ২০১৯-০৭-০৩ ১১:১৭:৫৯ | ক্যাটেগরী: খেলা | পঠিত: ৫ বার

ব্রাজিলের ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট গামার সোসিয়েদাদে স্পোরটিভা দা গামা ক্লাবের একাডেমিতে অনুশীলনরত বাংলাদেশের চার কিশোর ফুটবলার অনন্য এক অভিজ্ঞতা নিয়েই দেশে ফিরবেন।

ওমর ফারুক মিঠু, জগেন লাকরা, লতিফুর রহমান নাহিদ ও নাজমুল আকন্দ ব্রাজিল সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় এক মাসের জন্য গেলেন ফুটবলের দেশটিতে। আর এই এক মাসের সফরে তাদেও সবচেয়ে বড় অভিজ্ঞতাটি হলো ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মধ্যকার কোপা আমেরিকার জমজমাট সেমিফাইনাল ম্যাচটি দেখা।


ব্রাজিলের রাজধানী শহর ব্রাসিলিয়া থেকে বাসে মিনিট চল্লিশের পথ দেশটির ফেডারেল ডিস্ট্রিক গামা। সেখান থেকে সড়ক পথে ১০ ঘন্টার রাস্তা বেলো হরিজন্তে। ব্রাজিলের অন্যতম এই শহরের মিনেইরো স্টেডিয়ামেই হয়েছে ফুটবল ইতিহাসে ‘ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার প্রথম সেমিফাইনাল’। গামা ক্লাব বাংলাদেশের চার ফুটবলার এবং দুই কর্মকর্তাকে এই ম্যাচটি দেখার ব্যবস্থা করে দিয়েছিল।

ব্রাসিলিয়া থেকে চার কিশোরের সঙ্গে যাওয়া কোচ আবদুর রাজ্জাক জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘ক্লাব আমাদের ম্যাচ টিকিট এবং বেলো হরিজন্তে যাওয়া-আসার মাইক্রোর ব্যবস্থা করেছিল। আমাদের ছেলেদের জন্য এমন একটি ম্যাচ দেখা খুবই সৌভাগ্যের। খেলা দেখে তারা অনেক খুশি।’

চার ফুটবলার গ্যালারিতে বসে এক সঙ্গে খেলা দেখলেও তাদের মধ্যে ছিল সমর্থন নিয়ে মতভেদ। ওমর ফারুক মিঠু, জগেন লাকরা, লতিফুর রহমান নাহিদ ছিলেন ব্রাজিলের সমর্থক। শুধু নাজমুল আকন্দ ছিলেন মেসিদের সমর্থক।

ব্রাজিল সমর্থক ওমর ফারুক মিঠু তার প্রিয় দল জেতায় বেশ খুশি, ‘ম্যাচটি দেখতে পেরে এতো ভালো লাগছে যে বলে বোঝাতে পারবো না। দুটি জনপ্রিয় দলের খেলা এভাবে কাছ থেকে দেখবো ভাবতেও পারিনি। আমরা গ্যালারির সামনের দিকে ছিলাম। আমাদের সামনে আর কেউ ছিল না। একেবারে মাঠের কাছাকাছি। আমার স্মৃতির পাতায় এটা চিরদিন লিখে রাখবো।’

তারিখ সিলেক্ট করে খুজুন