ঢাকা ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জেলায় জেলায় পাঠানো হলো ব্যালট বাক্স

জেলায় জেলায় পাঠানো হলো ব্যালট বাক্স

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে এবার ব্যালট বাক্স জেলায় জেলায় পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার (১০ নভেম্বর) নির্বাচন ভবন ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ভোটের এ উপকরণ মাঠ পর্যায়ে পাঠানো হয়। ১৯ অক্টোবর থেকে ঢাকা অঞ্চলে ব্যালট বাক্স পাঠানোর মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়।

ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ এ বিষয়ে বলেন, নির্বাচনের জন্য প্রায় ১৩ ধরনের উপকরণের প্রয়োজন পড়ে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে- ব্যালট বাক্স, ব্যালট বাক্সের ঢাকনা ও লক, অমোচনীয় কালি, বিভিন্ন ধরনের সিল, স্ট্যাম্প, বিভিন্ন ধরনের ব্যাগ, কাগজ, প্যাড, রশি প্রভৃতি। এখন ব্যালট বাক্স পাঠানো হচ্ছে। আর ব্যালট পেপার ছাপানো হবে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের পরে।

ইসি কর্মকর্তা বলেন, নির্বাচনের প্রায় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কিছু কাজ রয়েছে যেগুলো তফসিল ঘোষণার পর করতে হয়। তফসিল হয়ে গেলে সে কার্যক্রমগুলো নির্ধারিত পদ্ধতিতে সম্পন্ন করা হবে। নির্বাচন কমিশনাররা বলেন, আগামী সপ্তাহেই তফসিল ঘোষণা করা হবে। আর ডিসেম্বরের শেষ অথবা জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে করা হবে ভোটগ্রহণ।

সংসদ নির্বাচনের ভোটার সংখ্যা ১১ কোটি ৯৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৩৩ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৯ জন ও নারী ভোটার ৫ কোটি ৮৯ লাখ ১৯ হাজার ২০২ জন। আর তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন ৮৫২ জন। এসব ভোটারের জন্য সাড়ে ৩ লাখের মতো ব্যালট বাক্স সংরক্ষণ করেছে ইসি।

জনপ্রিয় সংবাদ

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর প্রশ্নই নেই: বাইডেন

জেলায় জেলায় পাঠানো হলো ব্যালট বাক্স

আপডেট সময় ১০:৪৫:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ নভেম্বর ২০২৩

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে এবার ব্যালট বাক্স জেলায় জেলায় পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার (১০ নভেম্বর) নির্বাচন ভবন ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ভোটের এ উপকরণ মাঠ পর্যায়ে পাঠানো হয়। ১৯ অক্টোবর থেকে ঢাকা অঞ্চলে ব্যালট বাক্স পাঠানোর মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়।

ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ এ বিষয়ে বলেন, নির্বাচনের জন্য প্রায় ১৩ ধরনের উপকরণের প্রয়োজন পড়ে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে- ব্যালট বাক্স, ব্যালট বাক্সের ঢাকনা ও লক, অমোচনীয় কালি, বিভিন্ন ধরনের সিল, স্ট্যাম্প, বিভিন্ন ধরনের ব্যাগ, কাগজ, প্যাড, রশি প্রভৃতি। এখন ব্যালট বাক্স পাঠানো হচ্ছে। আর ব্যালট পেপার ছাপানো হবে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের পরে।

ইসি কর্মকর্তা বলেন, নির্বাচনের প্রায় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কিছু কাজ রয়েছে যেগুলো তফসিল ঘোষণার পর করতে হয়। তফসিল হয়ে গেলে সে কার্যক্রমগুলো নির্ধারিত পদ্ধতিতে সম্পন্ন করা হবে। নির্বাচন কমিশনাররা বলেন, আগামী সপ্তাহেই তফসিল ঘোষণা করা হবে। আর ডিসেম্বরের শেষ অথবা জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে করা হবে ভোটগ্রহণ।

সংসদ নির্বাচনের ভোটার সংখ্যা ১১ কোটি ৯৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৩৩ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৯ জন ও নারী ভোটার ৫ কোটি ৮৯ লাখ ১৯ হাজার ২০২ জন। আর তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন ৮৫২ জন। এসব ভোটারের জন্য সাড়ে ৩ লাখের মতো ব্যালট বাক্স সংরক্ষণ করেছে ইসি।