ঢাকা ০৫:২০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াকু সংগ্রহ আফগানদের

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াকু সংগ্রহ আফগানদের

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে এই ম্যাচটি অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানের জন্য সমান গুরুত্বপূর্ণ। নিজেদের অষ্টম ম্যাচে মুম্বাইর ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে আফগানিস্তান টস জিতে ব্যাট করতে নেমে অজিদের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট ছুড়ে দিয়েছে। ভারত বিশ্বকাপটা স্মরণীয় করেই রাখছে আফগানিস্তান। এরই মধ্যে চারটি ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের অন্যতম দাবিদার হিসেবে নিজেদের বেশ ভালোভাবেই উপস্থাপন করেছে আফগানরা। আজ মুখোমুখি হলো অস্ট্রেলিয়ার।

দিল্লির ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্যাট কামিন্সদের সামনে ২৯২ বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করিয়েছে ইবরাহিম জাদরান, হাশমতউল্লাহ শহিদি, রশিদ খানরা।

অসাধারণ এক সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন আফগান ব্যাটার ইবরাহিম জাদরান। ১৩১ বল খেলে শতরানের মাইলফলকে পৌঁছান তিনি। ৭টি মেরেছেন বাউন্ডারির মার। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ১৪৩ বলে ১২৯ রানে। শেষ মুহূর্তে রশিদ খান ১৮ বল খেলে তোলেন ৩৫ রান।

এই ম্যাচই দুই দলের সামনে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার দারুণ সুযোগ। অস্ট্রেলিয়া ৫ ম্যাচ জিতে ১০ পয়েন্ট নিয়ে এগিয়েই রয়েছে বলা যায়। অন্যদিকে চার ম্যাচ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে আফগানরাও রয়েছে সেমির দৌড়ে অনেকটা এগিয়ে। এমন এক সমীকরণের ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন আফগান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহিদি। ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার রহমানুল্লাহ গুরবাজ এবং ইবরাহিম জাদরান মিলে ৩৮ রানের জুটি গড়েন। ভালো সূচনা এনে দেয়ার পর অষ্টম ওভারে হ্যাজলউডের বলে ২১ রান করে আউট হয়ে যান রহমানুল্লাহ গুরবাজ।

এরপর রহমত শাহ এবং ইবরাহিম জাদরান মিলে জুটি গড়েন। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল যখন জুটি ভাঙেন তখন, এ দু’জন আফগানিস্তানকে পৌঁছে দেন ১২১ রানে। ৮৩ রানের জুটি গড়েন তারা। ৪৪ বলে ৩০ রান করে আউট হন রহমত শাহ। ৪৩ বলে ২৬ রান করে বোল্ড হয়ে যান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহিদি।

১৮ বলে ২২ রান করে আউট হন আজমতউল্লাহ ওমরজাই। ১০ বলে ১২ রান করে আউট হন মোহাম্মদ নবি। একপ্রান্তে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়লেও অন্যপ্রান্ত আগলে খেলে যেতে থাকেন ইবরাহিম জাদরান। যে কারণে ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নিতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি ইবরাহিমকে।

শেষ দিকে রশিদ খান ঝড় তুললে আফগানদের স্কোর তিনশ’র কাছাকাছি পৌঁছে যায়। শেষ ৫ ওভারেই আফগানরা স্কোরবোর্ডে রান যোগ করে ৬৪টি। উইকেট হারিয়েছিলো মাত্র ১টি। শেষ ২ ওভারে রান তোলে ৩০ রান। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে জস হ্যাজলউড ২টি এবং ১টি করে উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং অ্যাডাম জাম্পা।

জনপ্রিয় সংবাদ

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াকু সংগ্রহ আফগানদের

আপডেট সময় ০৬:৩৩:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে এই ম্যাচটি অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানের জন্য সমান গুরুত্বপূর্ণ। নিজেদের অষ্টম ম্যাচে মুম্বাইর ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে আফগানিস্তান টস জিতে ব্যাট করতে নেমে অজিদের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট ছুড়ে দিয়েছে। ভারত বিশ্বকাপটা স্মরণীয় করেই রাখছে আফগানিস্তান। এরই মধ্যে চারটি ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের অন্যতম দাবিদার হিসেবে নিজেদের বেশ ভালোভাবেই উপস্থাপন করেছে আফগানরা। আজ মুখোমুখি হলো অস্ট্রেলিয়ার।

দিল্লির ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্যাট কামিন্সদের সামনে ২৯২ বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করিয়েছে ইবরাহিম জাদরান, হাশমতউল্লাহ শহিদি, রশিদ খানরা।

অসাধারণ এক সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন আফগান ব্যাটার ইবরাহিম জাদরান। ১৩১ বল খেলে শতরানের মাইলফলকে পৌঁছান তিনি। ৭টি মেরেছেন বাউন্ডারির মার। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ১৪৩ বলে ১২৯ রানে। শেষ মুহূর্তে রশিদ খান ১৮ বল খেলে তোলেন ৩৫ রান।

এই ম্যাচই দুই দলের সামনে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার দারুণ সুযোগ। অস্ট্রেলিয়া ৫ ম্যাচ জিতে ১০ পয়েন্ট নিয়ে এগিয়েই রয়েছে বলা যায়। অন্যদিকে চার ম্যাচ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে আফগানরাও রয়েছে সেমির দৌড়ে অনেকটা এগিয়ে। এমন এক সমীকরণের ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন আফগান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহিদি। ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার রহমানুল্লাহ গুরবাজ এবং ইবরাহিম জাদরান মিলে ৩৮ রানের জুটি গড়েন। ভালো সূচনা এনে দেয়ার পর অষ্টম ওভারে হ্যাজলউডের বলে ২১ রান করে আউট হয়ে যান রহমানুল্লাহ গুরবাজ।

এরপর রহমত শাহ এবং ইবরাহিম জাদরান মিলে জুটি গড়েন। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল যখন জুটি ভাঙেন তখন, এ দু’জন আফগানিস্তানকে পৌঁছে দেন ১২১ রানে। ৮৩ রানের জুটি গড়েন তারা। ৪৪ বলে ৩০ রান করে আউট হন রহমত শাহ। ৪৩ বলে ২৬ রান করে বোল্ড হয়ে যান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহিদি।

১৮ বলে ২২ রান করে আউট হন আজমতউল্লাহ ওমরজাই। ১০ বলে ১২ রান করে আউট হন মোহাম্মদ নবি। একপ্রান্তে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়লেও অন্যপ্রান্ত আগলে খেলে যেতে থাকেন ইবরাহিম জাদরান। যে কারণে ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নিতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি ইবরাহিমকে।

শেষ দিকে রশিদ খান ঝড় তুললে আফগানদের স্কোর তিনশ’র কাছাকাছি পৌঁছে যায়। শেষ ৫ ওভারেই আফগানরা স্কোরবোর্ডে রান যোগ করে ৬৪টি। উইকেট হারিয়েছিলো মাত্র ১টি। শেষ ২ ওভারে রান তোলে ৩০ রান। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে জস হ্যাজলউড ২টি এবং ১টি করে উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং অ্যাডাম জাম্পা।