ঢাকা ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঝালকাঠিতে গরু জবাই করে গোশত নিয়ে চামড়া রেখে যায় চোরচক্র

ঝালকাঠিতে গরু জবাই করে গোশত নিয়ে চামড়া রেখে যায় চোরচক্র

মো. সাব্বির হোসেন, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠি জেলার কাঁঠালিয়ায় গোয়ালঘর থেকে গরু চুরির পর জবাই করে গোশত নিয়ে গেছে চোরচক্র। শনিবার মধ্যরাতে কাঁঠালিয়া উপজেলার দক্ষিন চেচঁরীর জমাদ্দার হাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চুরি হওয়া গরুটির মালিক চেচঁরী রামপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের জমাদ্দার হাট এলাকার শামসুল হক ফরাজির ছেলে মো. ফারুক ফরাজি।

ফারুক ফরাজি বলেন, তার গোয়ালে ৫টি গরু ছিল। রবিবার ভোরে ঘুম থেকে ওঠে দেখেন গোয়ালঘরের দরজা খোলা এবং একটি গরু নেই। পরে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে জানতে পারেন, বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে মাঠের মধ্যে গরুর চামড়া ও ভুঁড়ি পড়ে আছে। সেখানে গিয়ে চামড়ার রং ও রশি দেখে গরুটি তাঁর বলে নিশ্চিত হন ফারুক ফরাজি।

স্থানীয়রা জানান, চোরচক্র রাতে কৃষকের গরু চুরির পর জবাই করে মাংস নিয়ে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, স্থানীয় মাংস বিক্রেতাদের সঙ্গে চোরচক্রের আঁতাত রয়েছে। জীবন্ত গরু নিয়ে ধরা পড়ার ভয়ে জবাই করে বস্তা ভরে মাংস নিয়ে কসাইদের কাছে বিক্রি করেছে তারা।

কাঁঠালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। চোর শনাক্তের চেষ্টা চলছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে চক্রটিকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার।

জনপ্রিয় সংবাদ

পিটার হাসকে হুমকিদাতা ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

ঝালকাঠিতে গরু জবাই করে গোশত নিয়ে চামড়া রেখে যায় চোরচক্র

আপডেট সময় ০৯:২৪:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ নভেম্বর ২০২৩

মো. সাব্বির হোসেন, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠি জেলার কাঁঠালিয়ায় গোয়ালঘর থেকে গরু চুরির পর জবাই করে গোশত নিয়ে গেছে চোরচক্র। শনিবার মধ্যরাতে কাঁঠালিয়া উপজেলার দক্ষিন চেচঁরীর জমাদ্দার হাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চুরি হওয়া গরুটির মালিক চেচঁরী রামপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের জমাদ্দার হাট এলাকার শামসুল হক ফরাজির ছেলে মো. ফারুক ফরাজি।

ফারুক ফরাজি বলেন, তার গোয়ালে ৫টি গরু ছিল। রবিবার ভোরে ঘুম থেকে ওঠে দেখেন গোয়ালঘরের দরজা খোলা এবং একটি গরু নেই। পরে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে জানতে পারেন, বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে মাঠের মধ্যে গরুর চামড়া ও ভুঁড়ি পড়ে আছে। সেখানে গিয়ে চামড়ার রং ও রশি দেখে গরুটি তাঁর বলে নিশ্চিত হন ফারুক ফরাজি।

স্থানীয়রা জানান, চোরচক্র রাতে কৃষকের গরু চুরির পর জবাই করে মাংস নিয়ে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, স্থানীয় মাংস বিক্রেতাদের সঙ্গে চোরচক্রের আঁতাত রয়েছে। জীবন্ত গরু নিয়ে ধরা পড়ার ভয়ে জবাই করে বস্তা ভরে মাংস নিয়ে কসাইদের কাছে বিক্রি করেছে তারা।

কাঁঠালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। চোর শনাক্তের চেষ্টা চলছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে চক্রটিকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার।