ঢাকা ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের সকল পক্ষকে সহিংসতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জাতিসংঘের

বাংলাদেশের সকল পক্ষকে সহিংসতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। বাংলাদেশে রাজনৈতিক সমাবেশে সহিংসতার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগ এবং নির্বিচারে আটক করা থেকেও বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অধিকারকে সম্মান করা উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন গুতেরেস।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) নিয়মিত ব্রিফিংয়ে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক এসব তথ্য জানিয়েছেন।

ডুজারিক বলেন, আমাকে বাংলাদেশের পরিস্থিতি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছে এবং আমি আপনাকে বলতে পারি, মহাসচিব বাংলাদেশে রাজনৈতিক সমাবেশে সহিংসতার ঘটনায় উদ্বিগ্ন। এই সহিংসতায় অন্তত ৯ জন মারা গেছেন এবং আরও বহু মানুষ আহত হয়েছেন।

ব্রিফিংয়ে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, গত ২৮ অক্টোবর প্রধান বিরোধীদল বিএনপির সঙ্গে পুলিশ এবং বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দলের সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ এখনও গ্রেফতার চালিয়ে যাচ্ছে, তারা প্রধান বিরোধীদের গ্রেফতার করেছে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, এই অবস্থায় আপনি কীভাবে বিশ্বাস করতে পারেন যে আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও অন্তর্ভুক্তিমূলক হবে, যখন বিরোধীদলের ওপর আক্রমণের ঘটনা ঘটছে এবং সকল পর্যায়ের নেতা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের গ্রেফতার করা হচ্ছে?

জবাবে জাতিসংঘ মহাসচিবের এই মুখপাত্র বলেন, এসব ঘটনায় আমরা স্পষ্টতই উদ্বিগ্ন, যেমনটা আমি বলেছি, সহিংসতা নিয়ে। আমরা এখনও মনে করি, নির্বাচনের আগে শান্ত থাকা এবং সকল মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতার বিষয়ে শ্রদ্ধা থাকা জরুরি। তবে আমি মনে করি না, কেউ নির্বাচন নিয়ে পূর্বাভাস দিতে পারে।

এর আগে, গত আগস্টের শেষের দিকেও বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে কথা বলেছিলেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক। সেসময় তিনি বলেন, আমরা আগেই বলেছি, আমরা তো বটেই এবং আমি মনে করি, বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায় সবাই।

জনপ্রিয় সংবাদ

বাংলাদেশের সকল পক্ষকে সহিংসতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জাতিসংঘের

আপডেট সময় ০৪:৩১:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর ২০২৩

বাংলাদেশের সকল পক্ষকে সহিংসতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। বাংলাদেশে রাজনৈতিক সমাবেশে সহিংসতার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগ এবং নির্বিচারে আটক করা থেকেও বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অধিকারকে সম্মান করা উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন গুতেরেস।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) নিয়মিত ব্রিফিংয়ে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক এসব তথ্য জানিয়েছেন।

ডুজারিক বলেন, আমাকে বাংলাদেশের পরিস্থিতি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছে এবং আমি আপনাকে বলতে পারি, মহাসচিব বাংলাদেশে রাজনৈতিক সমাবেশে সহিংসতার ঘটনায় উদ্বিগ্ন। এই সহিংসতায় অন্তত ৯ জন মারা গেছেন এবং আরও বহু মানুষ আহত হয়েছেন।

ব্রিফিংয়ে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, গত ২৮ অক্টোবর প্রধান বিরোধীদল বিএনপির সঙ্গে পুলিশ এবং বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দলের সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ এখনও গ্রেফতার চালিয়ে যাচ্ছে, তারা প্রধান বিরোধীদের গ্রেফতার করেছে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, এই অবস্থায় আপনি কীভাবে বিশ্বাস করতে পারেন যে আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও অন্তর্ভুক্তিমূলক হবে, যখন বিরোধীদলের ওপর আক্রমণের ঘটনা ঘটছে এবং সকল পর্যায়ের নেতা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের গ্রেফতার করা হচ্ছে?

জবাবে জাতিসংঘ মহাসচিবের এই মুখপাত্র বলেন, এসব ঘটনায় আমরা স্পষ্টতই উদ্বিগ্ন, যেমনটা আমি বলেছি, সহিংসতা নিয়ে। আমরা এখনও মনে করি, নির্বাচনের আগে শান্ত থাকা এবং সকল মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতার বিষয়ে শ্রদ্ধা থাকা জরুরি। তবে আমি মনে করি না, কেউ নির্বাচন নিয়ে পূর্বাভাস দিতে পারে।

এর আগে, গত আগস্টের শেষের দিকেও বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে কথা বলেছিলেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক। সেসময় তিনি বলেন, আমরা আগেই বলেছি, আমরা তো বটেই এবং আমি মনে করি, বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায় সবাই।