ঢাকা ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাবতলীতে বাঁশ-লাঠি হাতে আওয়ামী লীগের অবস্থান

গাবতলীতে বাঁশ-লাঠি হাতে আওয়ামী লীগের অবস্থান

বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর তিনদিনের অবরোধের প্রথম দিন রাজধানীর গাবতলীতে ছোট ছোট লাঠি, হকস্টিক ও বাঁশ হাতে অবস্থান নিয়েছে আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) সকালে সরেজমিনে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বিএনপি-জামায়াতের ঢাকা অবরোধকে কেন্দ্র করে ‘জনগণের জানমাল রক্ষা ও জনজীবনের নিরাপত্তায়’ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফজরের নামাজের পর থেকেই এই এলাকায় অবস্থান নিয়েছেন।

অবস্থানের বিষয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মিজাম বলেন, ‘আমরা ভোর থেকে গাবতলী এলাকায় অবস্থান নিয়েছি। বিএনপি- জামায়াতের কোনো অস্তিত্ব নেই এখানে। সবকিছু ঠিক আছে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় আমরা সতর্ক। শুনেছি বিএনপি-জামায়াত এখানে আসবে, তবে তাদের কোনো দেখা নেই। দেশের সম্পদ আমাদের রক্ষা করতে হবে।’

গাবতলী ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ বাস কাউন্টার বন্ধ। কয়েকটি খোলা থাকলেও যাত্রী সংকট।

আতঙ্কে অনেকে বাস ছাড়তে পারছে না। গাবতলীর সড়কেও যান চলাচল একেবারে কম। তবে এখনো কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সার্বিক নিরাপত্তায় পুলিশের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে সতর্ক অবস্থান নিতে দেখা গেছে। যুবলীগের কর্মীদের বাইকের বহর নিয়ে গাবতলী ও এর আশপাশের এলাকায় শোডাউন দিতে দেখা গেছে।

২৮ অক্টোবর মহাসমাবেশে হামলা, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ আন্দোলনরত বিভিন্ন দলের সহস্রাধিক নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, বাড়ি বাড়ি তল্লাশি, হয়রানি ও নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং সরকারের পদত্যাগের এক দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে ৩১ অক্টোবর ভোর থেকে ২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সারাদেশে মহাসড়ক, রেল ও নৌপথে অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি।

বিএনপির এই অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণার পর জামায়াতে ইসলামীও তিনদিনের অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করে। সরকারবিরোধী অন্যান্য দলগুলোও এই অবরোধ কর্মসূচিতে সমর্থন দিয়েছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

গাবতলীতে বাঁশ-লাঠি হাতে আওয়ামী লীগের অবস্থান

আপডেট সময় ১১:৪৭:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর ২০২৩

বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর তিনদিনের অবরোধের প্রথম দিন রাজধানীর গাবতলীতে ছোট ছোট লাঠি, হকস্টিক ও বাঁশ হাতে অবস্থান নিয়েছে আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) সকালে সরেজমিনে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বিএনপি-জামায়াতের ঢাকা অবরোধকে কেন্দ্র করে ‘জনগণের জানমাল রক্ষা ও জনজীবনের নিরাপত্তায়’ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফজরের নামাজের পর থেকেই এই এলাকায় অবস্থান নিয়েছেন।

অবস্থানের বিষয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মিজাম বলেন, ‘আমরা ভোর থেকে গাবতলী এলাকায় অবস্থান নিয়েছি। বিএনপি- জামায়াতের কোনো অস্তিত্ব নেই এখানে। সবকিছু ঠিক আছে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় আমরা সতর্ক। শুনেছি বিএনপি-জামায়াত এখানে আসবে, তবে তাদের কোনো দেখা নেই। দেশের সম্পদ আমাদের রক্ষা করতে হবে।’

গাবতলী ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ বাস কাউন্টার বন্ধ। কয়েকটি খোলা থাকলেও যাত্রী সংকট।

আতঙ্কে অনেকে বাস ছাড়তে পারছে না। গাবতলীর সড়কেও যান চলাচল একেবারে কম। তবে এখনো কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সার্বিক নিরাপত্তায় পুলিশের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে সতর্ক অবস্থান নিতে দেখা গেছে। যুবলীগের কর্মীদের বাইকের বহর নিয়ে গাবতলী ও এর আশপাশের এলাকায় শোডাউন দিতে দেখা গেছে।

২৮ অক্টোবর মহাসমাবেশে হামলা, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ আন্দোলনরত বিভিন্ন দলের সহস্রাধিক নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, বাড়ি বাড়ি তল্লাশি, হয়রানি ও নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং সরকারের পদত্যাগের এক দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে ৩১ অক্টোবর ভোর থেকে ২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সারাদেশে মহাসড়ক, রেল ও নৌপথে অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি।

বিএনপির এই অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণার পর জামায়াতে ইসলামীও তিনদিনের অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করে। সরকারবিরোধী অন্যান্য দলগুলোও এই অবরোধ কর্মসূচিতে সমর্থন দিয়েছে।