ঢাকা ০৪:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাবনায় বসবাস করতে চেয়েছিলেন বাইডেনের কথিত উপদেষ্টা

পাবনায় বসবাস করতে চেয়েছিলেন বাইডেনের কথিত উপদেষ্টা

পাবনায় স্থায়ী হতে চেয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কথিত ভুয়া উপদেষ্টা মিয়া জাহিদুল ইসলাম আরেফী। পরিবারের সবাই যুক্তরাষ্ট্রে থাকলেও গত বছরের কোরবানির ঈদ এবং তিন-চার মাস আগে দুই দফা পাবনার বাড়িতে এসেছিলেন তিনি।

মিয়া জাহিদুল ইসলাম আরেফীর বাড়ির ভাড়াটিয়া রইচ উদ্দিন এবং প্রতিবেশী হাদুল মিয়াসহ আশপাশের লোকজন এসব তথ্য জানান। মিয়া জাহিদুল ইসলাম আরেফী নাম হলেও স্থায়ীরা তাকে বেলাল নামে চেনেন। ভাড়াটিয়া রইচ উদ্দিন জানান, আরেফীরা ১০ ভাইবোন। তাদের পৈতৃক বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া। তার বাবা পাবনা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ছিলেন। সেই সুবাদে পাবনা পৌর এলাকার শায়েস্তা খাঁ এলাকায় জমি কিনে বাড়ি করে স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন।

পরে সবাই আমেরিকায় চলে যান। তিনি বলেন, ‘গত বছরের কোরবানির ঈদ এবং তিন-চার মাস আগে দুই দফা পাবনার বাড়িতে এসেছিলেন তিনি। আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। ঢাকায় বিয়ে করেছেন। তার ব্যবহার-আচার খুবই ভালো। প্রতিবেশী হাদুল মিয়া বলেন, ‘বহু বছর আগে থেকেই তারা আমেরিকায় থাকেন। আমি তাকে চিনতাম না। তিন-চার মাস আগে আমার সঙ্গে দেখা হয়েছিল। তার বাড়ির সীমানা নিয়ে আমার সঙ্গে কথা হয়।

আমাদের বাড়ির সামনে রাস্তা খারাপ। তখন তিনি আমাকে বলেন, তার নাকি মেয়রের সঙ্গে কথা হয়েছে, এই রাস্তা ঠিক করে দেবেন। তারপর তিনি এখানে বাড়ি করবেন। প্রতিবেশীরা জানায়, পাবনায় তার তেমন আত্মীয়-স্বজন নেই। এ জন্য আসার পর পাবনা শহরের আবাসিক হোটেলে ছিলেন। পাবনায় ১০ তলা বাড়ি করে সেখানে থাকার কথা বলতেন।

উল্লেখ্য, রাজধানীতে বিএনপির সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষের পর গত শনিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক রহস্যময় ব্যক্তিকে দেখা যায়। নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে নিজেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উপদেষ্টা পরিচয় দিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে বিএনপির কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন। ওই ব্যক্তির সেই ভিডিও নিয়ে খবর প্রকাশ করলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। গতকাল রবিবার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়।

বেনজীর আহমেদকে আর সময় দেওয়া হবে না: দুদকের আইনজীবী

পাবনায় বসবাস করতে চেয়েছিলেন বাইডেনের কথিত উপদেষ্টা

আপডেট সময় ০৪:০৫:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩

পাবনায় স্থায়ী হতে চেয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কথিত ভুয়া উপদেষ্টা মিয়া জাহিদুল ইসলাম আরেফী। পরিবারের সবাই যুক্তরাষ্ট্রে থাকলেও গত বছরের কোরবানির ঈদ এবং তিন-চার মাস আগে দুই দফা পাবনার বাড়িতে এসেছিলেন তিনি।

মিয়া জাহিদুল ইসলাম আরেফীর বাড়ির ভাড়াটিয়া রইচ উদ্দিন এবং প্রতিবেশী হাদুল মিয়াসহ আশপাশের লোকজন এসব তথ্য জানান। মিয়া জাহিদুল ইসলাম আরেফী নাম হলেও স্থায়ীরা তাকে বেলাল নামে চেনেন। ভাড়াটিয়া রইচ উদ্দিন জানান, আরেফীরা ১০ ভাইবোন। তাদের পৈতৃক বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া। তার বাবা পাবনা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ছিলেন। সেই সুবাদে পাবনা পৌর এলাকার শায়েস্তা খাঁ এলাকায় জমি কিনে বাড়ি করে স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন।

পরে সবাই আমেরিকায় চলে যান। তিনি বলেন, ‘গত বছরের কোরবানির ঈদ এবং তিন-চার মাস আগে দুই দফা পাবনার বাড়িতে এসেছিলেন তিনি। আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। ঢাকায় বিয়ে করেছেন। তার ব্যবহার-আচার খুবই ভালো। প্রতিবেশী হাদুল মিয়া বলেন, ‘বহু বছর আগে থেকেই তারা আমেরিকায় থাকেন। আমি তাকে চিনতাম না। তিন-চার মাস আগে আমার সঙ্গে দেখা হয়েছিল। তার বাড়ির সীমানা নিয়ে আমার সঙ্গে কথা হয়।

আমাদের বাড়ির সামনে রাস্তা খারাপ। তখন তিনি আমাকে বলেন, তার নাকি মেয়রের সঙ্গে কথা হয়েছে, এই রাস্তা ঠিক করে দেবেন। তারপর তিনি এখানে বাড়ি করবেন। প্রতিবেশীরা জানায়, পাবনায় তার তেমন আত্মীয়-স্বজন নেই। এ জন্য আসার পর পাবনা শহরের আবাসিক হোটেলে ছিলেন। পাবনায় ১০ তলা বাড়ি করে সেখানে থাকার কথা বলতেন।

উল্লেখ্য, রাজধানীতে বিএনপির সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষের পর গত শনিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক রহস্যময় ব্যক্তিকে দেখা যায়। নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে নিজেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উপদেষ্টা পরিচয় দিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে বিএনপির কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন। ওই ব্যক্তির সেই ভিডিও নিয়ে খবর প্রকাশ করলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। গতকাল রবিবার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়।