ঢাকা ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরকার অন্যায়ভাবে মির্জা ফখরুলকে গ্রেফতার করেছে: জামায়াত

সরকার অন্যায়ভাবে মির্জা ফখরুলকে গ্রেফতার করেছে: জামায়াত

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে জামায়াতে ইসলামী। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মুজিবুর রহমান।

রোববার (২৯ অক্টোবর) রাতে দেওয়া এক বিবৃতিতে অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, ‘জনগণের অধিকার আদায়ের আন্দোলন বানচাল করার হীন উদ্দেশে ২৯ অক্টোবর সকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে সরকার অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। ফ্যাসিস্ট সরকারের জুলুম-নির্যাতনের স্বীকার জনগণের পিঠ দেয়ালে গিয়ে ঠেকেছে। জামায়াত ও বিএনপির ২৮ অক্টোবরের মহাসমাবেশে এবং অন্যান্য বিরোধীদলের সমাবেশে জনতার ঢল দেখে সরকার খেই হারিয়ে ফেলেছে।

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে সরকার দিশেহারা হয়ে পড়েছে দাবি করে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির বলেন, ‘জনসমর্থনহীন সরকার জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য জামায়াতসহ বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গণহারে গ্রেফতার করছে। তারই ধারাবাহিকতায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সঙ্গে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।’

অপর এক বিবৃতিতে অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, ‘জনগণের অধিকার আদায়ের আন্দোলন বানচাল করার হীন উদ্দেশে ২৮ অক্টোবর মৌলভীবাজার জেলা জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মাওলানা আব্দুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত দুই দিনে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের চার শতাধিক নেতাকর্মীকে সরকার অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। ২৯ অক্টোবর সকালে নিজ কর্মস্থল মাদরাসা থেকে খুলনা জেলা নায়েবে আমির মাওলানা কবিরুল ইসলামকে পুলিশ বিনা কারণে গ্রেফতার করে। এভাবে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে জেলে ঢুকিয়ে জনগণের আন্দোলন অতীতে যেমন কোনো সরকার দমন করতে পারেনি, তেমনই বর্তমান সরকারও পারবে না। সরকারের এসব অন্যায় গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকায় বেড়াতে আসা সাধারণ মানুষ এবং রিকশাচালক ও বিভিন্ন কল-কারখানার শ্রমিকদেরকে বিনা কারণে গ্রেফতার করে সরকার জেলে ঢুকাচ্ছে। সরকার গোটা দেশটাকেই আজ একটি বৃহৎ জেলখানায় পরিণত করেছে। স্বররাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল কয়েকদিন আগে স্বীকার করেছেন যে, দেশের কারাগারগুলোতে ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণেরও অধিক সংখ্যক বন্দিকে ঠাসাঠাসি করে রাখা হয়েছে। যে কারণে বন্দিরা ঠিকমতো খাবার পাচ্ছে না, চাহিদা অনুযায়ী পানিও পাচ্ছে না।

তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ অবস্থায় কোনো দেশ চলতে পারে না। জনগণের দাবি অবৈধ জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্দলীয়-নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে অবাধ, নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ, গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের ব্যবস্থা করা। সরকার যত তাড়াতাড়ি এ দাবি মেনে নেবে, দেশের জন্য ততই কল্যাণকর। তাই জনগণের দাবি মেনে নিয়ে দেশকে বর্তমান সংকট থেকে উদ্ধার করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি’, যোগ করেন জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির।

 

জনপ্রিয় সংবাদ

সরকার অন্যায়ভাবে মির্জা ফখরুলকে গ্রেফতার করেছে: জামায়াত

আপডেট সময় ১২:০৬:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে জামায়াতে ইসলামী। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মুজিবুর রহমান।

রোববার (২৯ অক্টোবর) রাতে দেওয়া এক বিবৃতিতে অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, ‘জনগণের অধিকার আদায়ের আন্দোলন বানচাল করার হীন উদ্দেশে ২৯ অক্টোবর সকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে সরকার অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। ফ্যাসিস্ট সরকারের জুলুম-নির্যাতনের স্বীকার জনগণের পিঠ দেয়ালে গিয়ে ঠেকেছে। জামায়াত ও বিএনপির ২৮ অক্টোবরের মহাসমাবেশে এবং অন্যান্য বিরোধীদলের সমাবেশে জনতার ঢল দেখে সরকার খেই হারিয়ে ফেলেছে।

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে সরকার দিশেহারা হয়ে পড়েছে দাবি করে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির বলেন, ‘জনসমর্থনহীন সরকার জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য জামায়াতসহ বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গণহারে গ্রেফতার করছে। তারই ধারাবাহিকতায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সঙ্গে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।’

অপর এক বিবৃতিতে অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, ‘জনগণের অধিকার আদায়ের আন্দোলন বানচাল করার হীন উদ্দেশে ২৮ অক্টোবর মৌলভীবাজার জেলা জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মাওলানা আব্দুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত দুই দিনে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের চার শতাধিক নেতাকর্মীকে সরকার অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। ২৯ অক্টোবর সকালে নিজ কর্মস্থল মাদরাসা থেকে খুলনা জেলা নায়েবে আমির মাওলানা কবিরুল ইসলামকে পুলিশ বিনা কারণে গ্রেফতার করে। এভাবে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে জেলে ঢুকিয়ে জনগণের আন্দোলন অতীতে যেমন কোনো সরকার দমন করতে পারেনি, তেমনই বর্তমান সরকারও পারবে না। সরকারের এসব অন্যায় গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকায় বেড়াতে আসা সাধারণ মানুষ এবং রিকশাচালক ও বিভিন্ন কল-কারখানার শ্রমিকদেরকে বিনা কারণে গ্রেফতার করে সরকার জেলে ঢুকাচ্ছে। সরকার গোটা দেশটাকেই আজ একটি বৃহৎ জেলখানায় পরিণত করেছে। স্বররাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল কয়েকদিন আগে স্বীকার করেছেন যে, দেশের কারাগারগুলোতে ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণেরও অধিক সংখ্যক বন্দিকে ঠাসাঠাসি করে রাখা হয়েছে। যে কারণে বন্দিরা ঠিকমতো খাবার পাচ্ছে না, চাহিদা অনুযায়ী পানিও পাচ্ছে না।

তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ অবস্থায় কোনো দেশ চলতে পারে না। জনগণের দাবি অবৈধ জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্দলীয়-নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে অবাধ, নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ, গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের ব্যবস্থা করা। সরকার যত তাড়াতাড়ি এ দাবি মেনে নেবে, দেশের জন্য ততই কল্যাণকর। তাই জনগণের দাবি মেনে নিয়ে দেশকে বর্তমান সংকট থেকে উদ্ধার করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি’, যোগ করেন জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির।