ঢাকা ১১:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জিতে নিল বাংলাদেশের মেয়েরা

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জিতে নিল বাংলাদেশের মেয়েরা

ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়ে টানা দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারালো বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। সঙ্গে দলটির বিপক্ষে প্রথমবারের মতো ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে সিরিজ জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করে লাল-সবুজের মেয়েরা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুক্রবার (২৭ অক্টোবর) টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ৬ উইকেটে ১২০ রান করে বাংলাদেশ। তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১০০ রান করে থামে পাকিস্তান। ২০ রানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে নিগার সুলতানা জ্যোতির দল।

এর আগে চারটি সিরিজ খেললেও পাকিস্তানকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশের মেয়েরা। পঞ্চম সিরিজে এসে ইতিহাস গড়েন জ্যোতিরা। প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত করায় বাংলাদেশের সামনে এবার পাকিস্তানকে ধবলধোলাই করার পালা।

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকে উইকেট হারাতে থাকে পাকিস্তানি ব্যাটাররা। এক বিসমাহ মারুফ ছাড়া কেউ প্রতিরোধ গড়তে পারেননি। তার ব্যাট থেকে সর্বোচ্চ ৩০ রান আসলেও ইনিংসটি ছিল ধীরগতির। শেষ দিকে উম্মে হানি ১৪ ও ডায়না বেগ ৩ রানে অপরাজিত ছিলেন। ১৫ রান আসে ইরাম জাভেদের ব্যাট থেকে। আর কেউ দুই অঙ্কের ঘর পেরোতে পারেননি।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ২টি করে উইকেট নেন নাহিদা আক্তার ও রাবেয়া খাতুন। নাহিদা ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান দেন। ১ ছাড়া ১টি করে উইকেট নেন মারুফা আক্তার ও ফাহিমা খাতুন। এর আগে দলীয় নৈপূণ্যে পাকিস্তানকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে মেয়েরা। ১টি করে চার-ছয়ে ২২ বলে সর্বোচ্চ ২৭ রান করে অপরাজিত থাকেন স্বর্ণা। তার হাতে ম্যাচসেরার পুরস্কার ওঠে। তার সঙ্গে ১ রানে অপরাজিত থাকেন শরিফা খাতুন। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে আজই অভিষেক হয় শরিফার।

শুরুতে ঝড়ো ব্যাটিংয়ের ইঙ্গিত দেন শামীমা, অন্য প্রান্তে মুর্শিদা খেলেন কিছুটা ধীরগতিতে। শামীমা ১৩ বলে ১৮ রান করে ফিরলে ভাঙে জুটি। তার আউটের পর রানের গতি সচল রাখেন সোবহানা মোস্তারি। তিনি ১১ বলে ১৬ রান করে ফিরলে রানের গতি কমে যায়। মাঝে মুর্শিদা ও অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতিরা খেই হারিয়ে ফেলেন। মুর্শিদা ২৮ বলে ২০ ও জ্যোতি ১৯ বলে ১০ রান করেন।

দুজন ফিরলে দলের হাল ধরেন স্বর্ণা ও রিতু মণি। রিতু ২১ বলে ১৯ রান করে ফিরলেও স্বর্ণা অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন ডায়না বেগ। ১টি করে উইকেট নেন সাদিয়া ইকবাল, নাশরা সান্ধু ও উম্মে হানি।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জিতে নিল বাংলাদেশের মেয়েরা

আপডেট সময় ০৮:৩৩:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২০২৩

ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়ে টানা দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারালো বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। সঙ্গে দলটির বিপক্ষে প্রথমবারের মতো ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে সিরিজ জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করে লাল-সবুজের মেয়েরা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুক্রবার (২৭ অক্টোবর) টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ৬ উইকেটে ১২০ রান করে বাংলাদেশ। তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১০০ রান করে থামে পাকিস্তান। ২০ রানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে নিগার সুলতানা জ্যোতির দল।

এর আগে চারটি সিরিজ খেললেও পাকিস্তানকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশের মেয়েরা। পঞ্চম সিরিজে এসে ইতিহাস গড়েন জ্যোতিরা। প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত করায় বাংলাদেশের সামনে এবার পাকিস্তানকে ধবলধোলাই করার পালা।

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকে উইকেট হারাতে থাকে পাকিস্তানি ব্যাটাররা। এক বিসমাহ মারুফ ছাড়া কেউ প্রতিরোধ গড়তে পারেননি। তার ব্যাট থেকে সর্বোচ্চ ৩০ রান আসলেও ইনিংসটি ছিল ধীরগতির। শেষ দিকে উম্মে হানি ১৪ ও ডায়না বেগ ৩ রানে অপরাজিত ছিলেন। ১৫ রান আসে ইরাম জাভেদের ব্যাট থেকে। আর কেউ দুই অঙ্কের ঘর পেরোতে পারেননি।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ২টি করে উইকেট নেন নাহিদা আক্তার ও রাবেয়া খাতুন। নাহিদা ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান দেন। ১ ছাড়া ১টি করে উইকেট নেন মারুফা আক্তার ও ফাহিমা খাতুন। এর আগে দলীয় নৈপূণ্যে পাকিস্তানকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে মেয়েরা। ১টি করে চার-ছয়ে ২২ বলে সর্বোচ্চ ২৭ রান করে অপরাজিত থাকেন স্বর্ণা। তার হাতে ম্যাচসেরার পুরস্কার ওঠে। তার সঙ্গে ১ রানে অপরাজিত থাকেন শরিফা খাতুন। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে আজই অভিষেক হয় শরিফার।

শুরুতে ঝড়ো ব্যাটিংয়ের ইঙ্গিত দেন শামীমা, অন্য প্রান্তে মুর্শিদা খেলেন কিছুটা ধীরগতিতে। শামীমা ১৩ বলে ১৮ রান করে ফিরলে ভাঙে জুটি। তার আউটের পর রানের গতি সচল রাখেন সোবহানা মোস্তারি। তিনি ১১ বলে ১৬ রান করে ফিরলে রানের গতি কমে যায়। মাঝে মুর্শিদা ও অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতিরা খেই হারিয়ে ফেলেন। মুর্শিদা ২৮ বলে ২০ ও জ্যোতি ১৯ বলে ১০ রান করেন।

দুজন ফিরলে দলের হাল ধরেন স্বর্ণা ও রিতু মণি। রিতু ২১ বলে ১৯ রান করে ফিরলেও স্বর্ণা অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন ডায়না বেগ। ১টি করে উইকেট নেন সাদিয়া ইকবাল, নাশরা সান্ধু ও উম্মে হানি।