ঢাকা ০৩:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেক্সিকোতে হারিকেন ওটিসের তাণ্ডব, নিহত ২৭

মেক্সিকোতে হারিকেন ওটিসের তাণ্ডব, নিহত ২৭

হারিকেন ওটিসের আঘাতে ২৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে মেক্সিকো সরকার জানিয়েছে। দেশটির আকাপুলকোর সমুদ্রসৈকত রিসোর্টে আঘাত হানার ফলে বিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে। ওটিসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২৬৬ কিলোমিটার। যা দক্ষিণ মেক্সিকোতে আঘাত হানে।

এটি প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে আঘাত হানা সবচেয়ে শক্তিশালী ঝড় বলে জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। বুধবার ৫ মাত্রার ঝড়ের শক্তি নিয়ে হারিকেন ওটিস আকাপুলকোতে আছড়ে পড়ে। ওটিসের আঘাতে বাড়িঘরের ছাদ উড়ে গেছে, উপড়ে গেছে অসংখ্য গাছ, বিমান চলাচল স্থগিত করা হয়েছে। এ ছাড়া অঞ্চলটির সঙ্গে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। হারিকেনটি প্রায় ৯ লাখ বাসিন্দার শহরটিজুড়ে ব্যাপক ধ্বংসের চিহ্ন রেখে যায়। রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে। হাসপাতালগুলো থেকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে রোগীদের। চারজন এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে জানিয়েছে সরকার।

প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর মেক্সিকো সিটিতে একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘অ্যাকাপুলকো ওপর দিয়ে যা গেছে তা সত্যিই বিপর্যয়কর ছিল।’ ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতির হিসাব করা হচ্ছে। ওটিস প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূলে এসে অপ্রত্যাশিত দ্রুতগতিতে শক্তি সঞ্চয় করে প্রবল হারিকেনে রূপ নেয়। বাতাসের তোড়ে পুরো আকাপুলকো শহরে আবর্জনা ছড়িয়ে পড়েছে। প্রেসিডেন্ট ওব্রাদর জানিয়েছেন, যারা নিখোঁজ রয়েছেন তারা নৌবাহিনীর সদস্য বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বেনজীর আহমেদকে আর সময় দেওয়া হবে না: দুদকের আইনজীবী

মেক্সিকোতে হারিকেন ওটিসের তাণ্ডব, নিহত ২৭

আপডেট সময় ০৫:১৭:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২০২৩

হারিকেন ওটিসের আঘাতে ২৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে মেক্সিকো সরকার জানিয়েছে। দেশটির আকাপুলকোর সমুদ্রসৈকত রিসোর্টে আঘাত হানার ফলে বিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে। ওটিসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২৬৬ কিলোমিটার। যা দক্ষিণ মেক্সিকোতে আঘাত হানে।

এটি প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে আঘাত হানা সবচেয়ে শক্তিশালী ঝড় বলে জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। বুধবার ৫ মাত্রার ঝড়ের শক্তি নিয়ে হারিকেন ওটিস আকাপুলকোতে আছড়ে পড়ে। ওটিসের আঘাতে বাড়িঘরের ছাদ উড়ে গেছে, উপড়ে গেছে অসংখ্য গাছ, বিমান চলাচল স্থগিত করা হয়েছে। এ ছাড়া অঞ্চলটির সঙ্গে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। হারিকেনটি প্রায় ৯ লাখ বাসিন্দার শহরটিজুড়ে ব্যাপক ধ্বংসের চিহ্ন রেখে যায়। রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে। হাসপাতালগুলো থেকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে রোগীদের। চারজন এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে জানিয়েছে সরকার।

প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর মেক্সিকো সিটিতে একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘অ্যাকাপুলকো ওপর দিয়ে যা গেছে তা সত্যিই বিপর্যয়কর ছিল।’ ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতির হিসাব করা হচ্ছে। ওটিস প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূলে এসে অপ্রত্যাশিত দ্রুতগতিতে শক্তি সঞ্চয় করে প্রবল হারিকেনে রূপ নেয়। বাতাসের তোড়ে পুরো আকাপুলকো শহরে আবর্জনা ছড়িয়ে পড়েছে। প্রেসিডেন্ট ওব্রাদর জানিয়েছেন, যারা নিখোঁজ রয়েছেন তারা নৌবাহিনীর সদস্য বলে ধারণা করা হচ্ছে।