ঢাকা ১২:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘৫৬ বছর ধরে দখলদারিত্বের শিকার ফিলিস্তিনিরা’

‘৫৬ বছর ধরে দখলদারিত্বের শিকার ফিলিস্তিনিরা’

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরেস বলেছেন, গাজায় সুস্পষ্টভাবে আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের লঙ্ঘন ঘটছে। হামাস ইসরায়েলে যে হামলা চালিয়েছে তা শূন্য থেকে তৈরি হয়নি। ৫৬ বছর ধরে ফিলিস্তিনিরা শ্বাসরুদ্ধকর দখলদারিত্বের শিকার। মঙ্গলবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিশেষ অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেছেন।

জাতিসংঘের মহাসচিব বলেছেন, ‘আমাকে স্পষ্ট করতে দিন: সশস্ত্র সংঘাতের কোনো পক্ষই আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের ঊর্ধ্বে নয়।…গাজায় আমাদের জাতিসংঘের জ্বালানি সরবরাহ কয়েক দিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। সেটা হবে আরেকটি বিপর্যয়। মহাকাব্যিক দুর্ভোগ লাঘব করার জন্য, সাহায্য বিতরণকে সহজ ও নিরাপদ করতে এবং জিম্মিদের মুক্তির সুবিধার্থে, আমি অবিলম্বে মানবিক যুদ্ধবিরতির জন্য আমার আবেদন পুনর্ব্যক্ত করছি।’

তিনি বলেন, এটা স্বীকার করা গুরুত্বপূর্ণ যে হামাসের হামলা ‘শূন্যতায় ঘটেনি।…ফিলিস্তিনি জনগণ ৫৬ বছর ধরে শ্বাসরুদ্ধকর দখলদারিত্বের শিকার। তারা দেখেছে তাদের ভূমি অবিচ্ছিন্নভাবে বসতিস্থাপনকাদের গ্রাস করা, সহিংসতায় জর্জরিত, তাদের অর্থনীতি স্তব্ধ, তাদের মানুষ বাস্তুচ্যুত এবং তাদের বাড়িঘর ভেঙে গেছে। দুর্দশায় তাদের রাজনৈতিক সমাধানের আশা লোপ পেয়েছে। গুতেরেস অবশ্য বলেছেন, ফিলিস্তিনিদের অভিযোগ হামাসের ‘ভয়াবহ হামলা’কে ন্যায্যতা দিতে পারে না এবং এ কারণে ‘ফিলিস্তিনি জনগণের সম্মিলিত শাস্তি’ ন্যায্য হতে পারে না।

‘৫৬ বছর ধরে দখলদারিত্বের শিকার ফিলিস্তিনিরা’

আপডেট সময় ০৯:২৬:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৫ অক্টোবর ২০২৩

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরেস বলেছেন, গাজায় সুস্পষ্টভাবে আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের লঙ্ঘন ঘটছে। হামাস ইসরায়েলে যে হামলা চালিয়েছে তা শূন্য থেকে তৈরি হয়নি। ৫৬ বছর ধরে ফিলিস্তিনিরা শ্বাসরুদ্ধকর দখলদারিত্বের শিকার। মঙ্গলবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিশেষ অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেছেন।

জাতিসংঘের মহাসচিব বলেছেন, ‘আমাকে স্পষ্ট করতে দিন: সশস্ত্র সংঘাতের কোনো পক্ষই আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের ঊর্ধ্বে নয়।…গাজায় আমাদের জাতিসংঘের জ্বালানি সরবরাহ কয়েক দিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। সেটা হবে আরেকটি বিপর্যয়। মহাকাব্যিক দুর্ভোগ লাঘব করার জন্য, সাহায্য বিতরণকে সহজ ও নিরাপদ করতে এবং জিম্মিদের মুক্তির সুবিধার্থে, আমি অবিলম্বে মানবিক যুদ্ধবিরতির জন্য আমার আবেদন পুনর্ব্যক্ত করছি।’

তিনি বলেন, এটা স্বীকার করা গুরুত্বপূর্ণ যে হামাসের হামলা ‘শূন্যতায় ঘটেনি।…ফিলিস্তিনি জনগণ ৫৬ বছর ধরে শ্বাসরুদ্ধকর দখলদারিত্বের শিকার। তারা দেখেছে তাদের ভূমি অবিচ্ছিন্নভাবে বসতিস্থাপনকাদের গ্রাস করা, সহিংসতায় জর্জরিত, তাদের অর্থনীতি স্তব্ধ, তাদের মানুষ বাস্তুচ্যুত এবং তাদের বাড়িঘর ভেঙে গেছে। দুর্দশায় তাদের রাজনৈতিক সমাধানের আশা লোপ পেয়েছে। গুতেরেস অবশ্য বলেছেন, ফিলিস্তিনিদের অভিযোগ হামাসের ‘ভয়াবহ হামলা’কে ন্যায্যতা দিতে পারে না এবং এ কারণে ‘ফিলিস্তিনি জনগণের সম্মিলিত শাস্তি’ ন্যায্য হতে পারে না।