ঢাকা ০২:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও খেলা হচ্ছে না তাসকিনের

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও খেলা হচ্ছে না তাসকিনের

বিশ্বকাপের শুরু থেকে খানিকটা চোট নিয়ে খেলছিলেন তাসকিন আহমেদ। তার ওপর আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে কাঁধের পুরনো চোটে পড়েন তিনি। অবশ্য সেটাকে পাত্তা দেননি খুব একটা। হালকা সমস্যা নিয়েও খেলে গিয়েছিলেন আরো দুই ম্যাচ। কিন্তু তার পুরো সেবা পাচ্ছিল না দল।

এজন্য ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে তাকে বিশ্রামে রেখেছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। মঙ্গলবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচেও সাইডবেঞ্চে বসে থাকতে হবে তাকে। সোমবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান জানিয়েছেন তাসকিন খেলতে পারছেন না আগামীকালকের ম্যাচেও।

‘তাসকিন কালকের ম্যাচ খেলতে পারছে না। এই ম্যাচের পর থেকে সে খেলতে পারবে। তার কাঁধে সমস্যা রয়েছে। শেষ দুই ম্যাচে ভুগছে তাসকিন। ডাক্তার ও ফিজিও সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাকে দুই ম্যাচের বিশ্রাম দিতে। আশা করছি পরের চার ম্যাচে তাকে পাওয়া যাবে।’

বিশ্বকাপে যে তিনটি ম্যাচ তিনি খেলেছেন, ব্যাথা সঙ্গে নিয়েই খেলতে হয়েছে তাকে। আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ছয় ওভার করে বল করেন। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে চেন্নাইয়ে করেন ৮ ওভার। তিন ম্যাচে উইকেট পেয়েছেন দুটি। এক আসর পর বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেলেও এখনও মেলে ধরার মতো পারফরম্যান্স আসেনি। তবে এসব নিয়ে তাসকিন বিচলিত নন একদমই। কারণ, খুব ভালো করেই জানেন, ব্যর্থতা পেরিয়ে সাফল্যের সূর্য্যের দেখা মিলবে।

সাকিবের কণ্ঠেও পাওয়া গেল একই সুর, ‘তাসকিনকে পরের চার ম্যাচে পাওয়া আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এই দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় সে। তাকে আমরা সহজেই টুর্নামেন্টের মাঝপথে হারাতে চাই না। আর আমাদের হাতে তার রিপ্লেসমেন্টও কেউ নেই। তাই তাকে বিশ্রাম দেওয়াটা ভালো হয়েছে। আশা করছি চারটি ম্যাচ খেলতে পারবে।

জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সিগঞ্জের আওয়ামী লীগের দু-পক্ষরে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত ১

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও খেলা হচ্ছে না তাসকিনের

আপডেট সময় ১১:২০:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০২৩

বিশ্বকাপের শুরু থেকে খানিকটা চোট নিয়ে খেলছিলেন তাসকিন আহমেদ। তার ওপর আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে কাঁধের পুরনো চোটে পড়েন তিনি। অবশ্য সেটাকে পাত্তা দেননি খুব একটা। হালকা সমস্যা নিয়েও খেলে গিয়েছিলেন আরো দুই ম্যাচ। কিন্তু তার পুরো সেবা পাচ্ছিল না দল।

এজন্য ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে তাকে বিশ্রামে রেখেছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। মঙ্গলবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচেও সাইডবেঞ্চে বসে থাকতে হবে তাকে। সোমবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান জানিয়েছেন তাসকিন খেলতে পারছেন না আগামীকালকের ম্যাচেও।

‘তাসকিন কালকের ম্যাচ খেলতে পারছে না। এই ম্যাচের পর থেকে সে খেলতে পারবে। তার কাঁধে সমস্যা রয়েছে। শেষ দুই ম্যাচে ভুগছে তাসকিন। ডাক্তার ও ফিজিও সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাকে দুই ম্যাচের বিশ্রাম দিতে। আশা করছি পরের চার ম্যাচে তাকে পাওয়া যাবে।’

বিশ্বকাপে যে তিনটি ম্যাচ তিনি খেলেছেন, ব্যাথা সঙ্গে নিয়েই খেলতে হয়েছে তাকে। আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ছয় ওভার করে বল করেন। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে চেন্নাইয়ে করেন ৮ ওভার। তিন ম্যাচে উইকেট পেয়েছেন দুটি। এক আসর পর বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেলেও এখনও মেলে ধরার মতো পারফরম্যান্স আসেনি। তবে এসব নিয়ে তাসকিন বিচলিত নন একদমই। কারণ, খুব ভালো করেই জানেন, ব্যর্থতা পেরিয়ে সাফল্যের সূর্য্যের দেখা মিলবে।

সাকিবের কণ্ঠেও পাওয়া গেল একই সুর, ‘তাসকিনকে পরের চার ম্যাচে পাওয়া আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এই দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় সে। তাকে আমরা সহজেই টুর্নামেন্টের মাঝপথে হারাতে চাই না। আর আমাদের হাতে তার রিপ্লেসমেন্টও কেউ নেই। তাই তাকে বিশ্রাম দেওয়াটা ভালো হয়েছে। আশা করছি চারটি ম্যাচ খেলতে পারবে।