ঢাকা ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এ নিয়ে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতল স্বাগতিক ভারত

এ নিয়ে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতল স্বাগতিক ভারত

নিউজিল্যান্ডকেও হারিয়ে দিয়েছে রোহিত শর্মার দল। এ নিয়ে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতল স্বাগতিক ভারত। অন্যদিকে টানা চার জয়ের পর প্রথম হারল নিউজিল্যান্ড।

অপরাজিত থেকে ধর্মশালায় মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল। শীর্ষে ওঠার লড়াইয়ে গতবারের ফাইনালিস্ট কিউইদের ৪ উইকেটে হারিয়ে এককভাবে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে এখন ভারত। পাঁচ ম্যাচে পাঁচ জয়ে ১০ পয়েন্ট রোহিত শর্মার দলের। সমান ম্যাচে চার জয় ও এক হারে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে নিউজিল্যান্ড।

ড্যারিল মিচেলের দুর্দান্ত শতরানে গড়া নিউজিল্যান্ডের ২৭৩ রান বিরাট কোহলির বীরোচিত ব্যাটিংয়ে ১২ বল বাকী থাকতে ছাড়িয়ে গেছে ভারত। ধর্মশালায় নিউজিল্যান্ডের শুরুটা একদম ভালো হয়নি। ১৯ রানে ফিরে আসেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটার। মোহাম্মদ সিরাজ চতুর্থ ওভারে ডেভন কনওয়েকে ফেরানোর পর উইল ইয়াংকে সরাসরি বোল্ড করেছেন ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেওয়া মোহাম্মদ সামি।

নিজের প্রথম বলেই উইকেট নেন ভারতের এই পেসার। তবে রাচিন রবীন্দ্র ও ড্যারিল মিচেলের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে কক্ষপথে ফেরে কিউইরা। তৃতীয় উইকেটে এ দুজন মিলে যোগ করেছেন ১৫৯ রান। ৬টি চার এবং ১টি ছক্কায় ৮৭ বলে ৭৫ রান করা রাচিন রবীন্দ্রকে ফিরিয়ে এই জুটিও ভাঙেন সামি। এরপর নিয়মিত উইকেট পড়তে থাকে এই প্রান্তে।

কুলদীপ যাদবের জোড়া আঘাতের পাশাপাশি উইকেট উত্সবে যোগ দেন জাসপ্রিত বুমরাহও। এরপর সামিও তাঁর ঝুলিতে ভরেন আরো দুই শিকার। তবে অন্যপ্রান্তে অবিচল আস্থায় খেলছিলেন মিচেল। তাঁর ১৩০ রানের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতেই ভালো একটা স্কোর গড়ে কিউইরা। ১২৭ বলে ৯টি চার এবং ৫টি ছক্কায় ইনিংসটি সাজিয়েছেন মিচেল। ১০ ওভারে ৫৪ রান খরচায় ৫ উইকেট নেন সামি। ৭৩ রানে ২ উইকেট কুলদীপ যাদবের।

রান তাড়ায় ১১.১ ওভারে ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়ে ভারতকে সুন্দর শুরু এনে দেন রোহিত শর্মা এবং শুভমান গিল। ৫ রানের ব্যবধানে এই দুজনকেই ফিরিয়ে কিউইদের লড়াইয়ে ফেরান লকি ফার্গুসন। ৪৬ রান করে বোল্ড হয়েছেন অধিনায়ক রোহিত। আর ২৬ রানে মিচেলের তালুবন্দী হয়েছেন শুভমান গিল। এরপর বিরাট কোহলির সঙ্গে ৫২ রানের জুটি গড়ে আউট হন শ্রেয়াস আয়ার। ট্রেন্ট বোল্টের শিকার হওয়ার আগে ৬টি চারে ২৯ বলে ৩৩ রান করেন আয়ার।

১২৮ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় ভারত। এরপর কোহলি পাশে পেয়ে যান লোকেশ রাহুলকে। তাতে জয়ের আরেকটু এগিয়ে যায় ভারত। ২৭ রান করে মিচেল স্যান্টনারের বলে এলবির ফাঁদে পড়ে ফেরেন রাহুল। খানিকটা পর কোহলির সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে যান সূর্য্যকুমার যাদবও। ম্যাচও জমে উঠে দারুণভাবে। তবে কোহলির ৯৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে শেষ পর্যন্ত বিজয় উত্সব করেছে ভারতই।

জনপ্রিয় সংবাদ

এ নিয়ে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতল স্বাগতিক ভারত

আপডেট সময় ১০:৫৫:৩৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২২ অক্টোবর ২০২৩

নিউজিল্যান্ডকেও হারিয়ে দিয়েছে রোহিত শর্মার দল। এ নিয়ে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতল স্বাগতিক ভারত। অন্যদিকে টানা চার জয়ের পর প্রথম হারল নিউজিল্যান্ড।

অপরাজিত থেকে ধর্মশালায় মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল। শীর্ষে ওঠার লড়াইয়ে গতবারের ফাইনালিস্ট কিউইদের ৪ উইকেটে হারিয়ে এককভাবে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে এখন ভারত। পাঁচ ম্যাচে পাঁচ জয়ে ১০ পয়েন্ট রোহিত শর্মার দলের। সমান ম্যাচে চার জয় ও এক হারে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে নিউজিল্যান্ড।

ড্যারিল মিচেলের দুর্দান্ত শতরানে গড়া নিউজিল্যান্ডের ২৭৩ রান বিরাট কোহলির বীরোচিত ব্যাটিংয়ে ১২ বল বাকী থাকতে ছাড়িয়ে গেছে ভারত। ধর্মশালায় নিউজিল্যান্ডের শুরুটা একদম ভালো হয়নি। ১৯ রানে ফিরে আসেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটার। মোহাম্মদ সিরাজ চতুর্থ ওভারে ডেভন কনওয়েকে ফেরানোর পর উইল ইয়াংকে সরাসরি বোল্ড করেছেন ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেওয়া মোহাম্মদ সামি।

নিজের প্রথম বলেই উইকেট নেন ভারতের এই পেসার। তবে রাচিন রবীন্দ্র ও ড্যারিল মিচেলের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে কক্ষপথে ফেরে কিউইরা। তৃতীয় উইকেটে এ দুজন মিলে যোগ করেছেন ১৫৯ রান। ৬টি চার এবং ১টি ছক্কায় ৮৭ বলে ৭৫ রান করা রাচিন রবীন্দ্রকে ফিরিয়ে এই জুটিও ভাঙেন সামি। এরপর নিয়মিত উইকেট পড়তে থাকে এই প্রান্তে।

কুলদীপ যাদবের জোড়া আঘাতের পাশাপাশি উইকেট উত্সবে যোগ দেন জাসপ্রিত বুমরাহও। এরপর সামিও তাঁর ঝুলিতে ভরেন আরো দুই শিকার। তবে অন্যপ্রান্তে অবিচল আস্থায় খেলছিলেন মিচেল। তাঁর ১৩০ রানের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতেই ভালো একটা স্কোর গড়ে কিউইরা। ১২৭ বলে ৯টি চার এবং ৫টি ছক্কায় ইনিংসটি সাজিয়েছেন মিচেল। ১০ ওভারে ৫৪ রান খরচায় ৫ উইকেট নেন সামি। ৭৩ রানে ২ উইকেট কুলদীপ যাদবের।

রান তাড়ায় ১১.১ ওভারে ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়ে ভারতকে সুন্দর শুরু এনে দেন রোহিত শর্মা এবং শুভমান গিল। ৫ রানের ব্যবধানে এই দুজনকেই ফিরিয়ে কিউইদের লড়াইয়ে ফেরান লকি ফার্গুসন। ৪৬ রান করে বোল্ড হয়েছেন অধিনায়ক রোহিত। আর ২৬ রানে মিচেলের তালুবন্দী হয়েছেন শুভমান গিল। এরপর বিরাট কোহলির সঙ্গে ৫২ রানের জুটি গড়ে আউট হন শ্রেয়াস আয়ার। ট্রেন্ট বোল্টের শিকার হওয়ার আগে ৬টি চারে ২৯ বলে ৩৩ রান করেন আয়ার।

১২৮ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় ভারত। এরপর কোহলি পাশে পেয়ে যান লোকেশ রাহুলকে। তাতে জয়ের আরেকটু এগিয়ে যায় ভারত। ২৭ রান করে মিচেল স্যান্টনারের বলে এলবির ফাঁদে পড়ে ফেরেন রাহুল। খানিকটা পর কোহলির সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে যান সূর্য্যকুমার যাদবও। ম্যাচও জমে উঠে দারুণভাবে। তবে কোহলির ৯৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে শেষ পর্যন্ত বিজয় উত্সব করেছে ভারতই।