ঢাকা ০৪:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাজায় নারী-শিশুসহ আরও ৩০৭ জন নিহত

ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরায়েলি বোমাবর্ষণ থেমে নেই। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ৩০৭ জনের প্রাণ গেছে। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ৭০০ দাঁড়িয়েছে। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে অন্তত ১ হাজার ৫২৪ শিশু ও ১ হাজার ৪৪৪নারীর রয়েছেন। আহত হয়েছেন সাড়ে ১২ হাজারের বেশি মানুষ।

গাজার বিধ্বস্ত ভবনগুলোর নিচে এখনো অনেক মানুষ আটকা পড়ে আছে। তাঁদের অনেকের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তাই নিহতের এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা হচ্ছে।

গাজার আবাসন মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, গাজার অন্তত ৩০ শতাংশ ঘরবাড়ি ইসরায়েলি বোমার আঘাতে হয় ধ্বংস নয়তো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গাজায় ভিটে-বাড়ি ছাড়া মানুষের সংখ্যা ইতিমধ্যে ১০ লাখ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। তাঁদের মধ্যে ৫ লাখ ২৭ হাজার ৫০০–এর বেশি মানুষ জাতিসংঘ পরিচালিত ১৪৭টি আশ্রয়শিবিরে উঠেছেন।

স্বধীনতাকামী সংগঠন হামাস ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে নজিরবিহীন হামলা চালায়। জবাবে ওই দিনই পাল্টা হামলা শুরু করে ইসরায়েল।

এর মধ্যে জেরুজালেমসহ ফিলিস্তিনের কয়েকটি জায়গায় আশ্রয়শিবিরে অভিযান চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এ ছাড়া গাজা থেকে অন্যত্র সরে যাওয়ার সময় বেসামরিক লোকজনের ওপর ইসরায়েলি বাহিনীর বিমান হামলা চালানোর খবর এসেছে। এমন কি হামলা হয়েছে গাজার হাসপাতালেও যেখানে পাঁচশতাধিক বেসামরিক লোকজন নিহত হয়েছেন।

বেনজীর আহমেদকে আর সময় দেওয়া হবে না: দুদকের আইনজীবী

গাজায় নারী-শিশুসহ আরও ৩০৭ জন নিহত

আপডেট সময় ১১:৫৭:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর ২০২৩

ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরায়েলি বোমাবর্ষণ থেমে নেই। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ৩০৭ জনের প্রাণ গেছে। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ৭০০ দাঁড়িয়েছে। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে অন্তত ১ হাজার ৫২৪ শিশু ও ১ হাজার ৪৪৪নারীর রয়েছেন। আহত হয়েছেন সাড়ে ১২ হাজারের বেশি মানুষ।

গাজার বিধ্বস্ত ভবনগুলোর নিচে এখনো অনেক মানুষ আটকা পড়ে আছে। তাঁদের অনেকের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তাই নিহতের এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা হচ্ছে।

গাজার আবাসন মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, গাজার অন্তত ৩০ শতাংশ ঘরবাড়ি ইসরায়েলি বোমার আঘাতে হয় ধ্বংস নয়তো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গাজায় ভিটে-বাড়ি ছাড়া মানুষের সংখ্যা ইতিমধ্যে ১০ লাখ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। তাঁদের মধ্যে ৫ লাখ ২৭ হাজার ৫০০–এর বেশি মানুষ জাতিসংঘ পরিচালিত ১৪৭টি আশ্রয়শিবিরে উঠেছেন।

স্বধীনতাকামী সংগঠন হামাস ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে নজিরবিহীন হামলা চালায়। জবাবে ওই দিনই পাল্টা হামলা শুরু করে ইসরায়েল।

এর মধ্যে জেরুজালেমসহ ফিলিস্তিনের কয়েকটি জায়গায় আশ্রয়শিবিরে অভিযান চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এ ছাড়া গাজা থেকে অন্যত্র সরে যাওয়ার সময় বেসামরিক লোকজনের ওপর ইসরায়েলি বাহিনীর বিমান হামলা চালানোর খবর এসেছে। এমন কি হামলা হয়েছে গাজার হাসপাতালেও যেখানে পাঁচশতাধিক বেসামরিক লোকজন নিহত হয়েছেন।