ঢাকা ১০:২৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সুষ্ঠু নির্বাচন করে সারা দুনিয়াকে দেখিয়ে দেব: ওবায়দুল কাদের

সুষ্ঠু নির্বাচন করে সারা দুনিয়াকে দেখিয়ে দেব: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘নির্বাচন আপনারা সুষ্ঠু চান, আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন করব। আমাদের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের নির্বাচন নিয়ে বদনাম করা হয়। কিন্তু ২০০৮ সালের নির্বাচন নিয়ে তো কোনো বদনাম করা হয় না। সে নির্বাচনে ৩০টি আসন পায় বিএনপি।

সেটা নিয়ে তো দেশে-বিদেশে কোনো প্রশ্ন ছিল না। আমরা কোনো খুঁত রাখব না। সুষ্ঠু নির্বাচন করে সারা দুনিয়াকে দেখিয়ে দেব- আমরা গণতন্ত্র চাই, আমরাই গণতন্ত্রের মূল শক্তি। শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজে আয়োজিত আলোচনাসভা এবং মেধাবৃত্তি, দরিদ্র তহবিলে অনুদান ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। সরকারকে উদ্দেশ করে দেওয়া বিএনপির শেষ বার্তা নিয়ে কাদের বলেন, ‘আমাদের বার্তা হচ্ছে- আমরা সংবিধান থেকে এক চুলও নড়ব না। সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশে নির্বাচন হবে।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সংবিধান আমাদের নির্বাচনের চালিকাশক্তি। সংবিধান যা বলবে আমরা তাই করব। বন্ধুদের পরামর্শ আমরা শুনব, কিন্তু সংবিধান থেকে আমরা এক চুলও নড়ব না। আপনি বার্তা দেবেন? আমাদের বার্তাও আছে। আমাদের বার্তা হচ্ছে আমরা সংবিধান থেকে এক চুলও নড়ব না। সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশে নির্বাচন হবে। দেশি-বিদেশি বন্ধুদেরও আশ্বস্ত করেছি।

পদ্মা সেতু, মেট্রো রেল, কর্ণফুলী টানেলের কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এগুলো ম্যাজিক। এসব শেখ হাসিনার ম্যাজিক। আর এগুলো দেখে বিএনপি জ্বালায় মরে, অন্তরজ্বালায় কাঁদে। বিএনপির আসল দুঃখ- এগুলো তো করতে পারলাম না। এখন রূপপুর নিয়েও তারা কথা বলে। বিশ্বের ৩৩তম পরমাণু ক্লাবের সদস্য আমরা। এটা সহ্য হয় না তাদের। আসন্ন নির্বাচনে জয়ের আশা প্রকাশ করে কাদের বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে আগামী নির্বাচনে আমরা জিতব। আবারও ক্ষমতায় ফিরে আসব। শেষ বার্তায় কোনো কাজ হবে না।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জন্য কথায় কথায় চোখের পানি পড়ে। একটা আন্দোলনও কী করেছেন? কোনো দিন? আমাদের নাকি শেষ বার্তা দেবে। ১৫ বছরে কমপক্ষে এক হাজার ৫০০ বার্তা তারা দিয়েছে। আন্দোলন কখনো হয়নি। কাদের বলেন, ‘এখন পকেটে টাকা আছে, তাই গরম গরম কথা বলছে। লন্ডন থেকে এসেছে, পকেট গরম। এখন আর কাঁদে না। এখন খুশিতে ডগমগ। কোনো বার্তায় কাজ হবে না। বাংলাদেশের মানুষ যত দিন শেখ হাসিনার সঙ্গে আছে তত দিন কোনো বার্তা দিয়ে লাভ হবে না।

জনপ্রিয় সংবাদ

পিটার হাসকে হুমকিদাতা ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

সুষ্ঠু নির্বাচন করে সারা দুনিয়াকে দেখিয়ে দেব: ওবায়দুল কাদের

আপডেট সময় ০৩:৩৩:২৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর ২০২৩

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘নির্বাচন আপনারা সুষ্ঠু চান, আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন করব। আমাদের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের নির্বাচন নিয়ে বদনাম করা হয়। কিন্তু ২০০৮ সালের নির্বাচন নিয়ে তো কোনো বদনাম করা হয় না। সে নির্বাচনে ৩০টি আসন পায় বিএনপি।

সেটা নিয়ে তো দেশে-বিদেশে কোনো প্রশ্ন ছিল না। আমরা কোনো খুঁত রাখব না। সুষ্ঠু নির্বাচন করে সারা দুনিয়াকে দেখিয়ে দেব- আমরা গণতন্ত্র চাই, আমরাই গণতন্ত্রের মূল শক্তি। শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজে আয়োজিত আলোচনাসভা এবং মেধাবৃত্তি, দরিদ্র তহবিলে অনুদান ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। সরকারকে উদ্দেশ করে দেওয়া বিএনপির শেষ বার্তা নিয়ে কাদের বলেন, ‘আমাদের বার্তা হচ্ছে- আমরা সংবিধান থেকে এক চুলও নড়ব না। সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশে নির্বাচন হবে।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সংবিধান আমাদের নির্বাচনের চালিকাশক্তি। সংবিধান যা বলবে আমরা তাই করব। বন্ধুদের পরামর্শ আমরা শুনব, কিন্তু সংবিধান থেকে আমরা এক চুলও নড়ব না। আপনি বার্তা দেবেন? আমাদের বার্তাও আছে। আমাদের বার্তা হচ্ছে আমরা সংবিধান থেকে এক চুলও নড়ব না। সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশে নির্বাচন হবে। দেশি-বিদেশি বন্ধুদেরও আশ্বস্ত করেছি।

পদ্মা সেতু, মেট্রো রেল, কর্ণফুলী টানেলের কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এগুলো ম্যাজিক। এসব শেখ হাসিনার ম্যাজিক। আর এগুলো দেখে বিএনপি জ্বালায় মরে, অন্তরজ্বালায় কাঁদে। বিএনপির আসল দুঃখ- এগুলো তো করতে পারলাম না। এখন রূপপুর নিয়েও তারা কথা বলে। বিশ্বের ৩৩তম পরমাণু ক্লাবের সদস্য আমরা। এটা সহ্য হয় না তাদের। আসন্ন নির্বাচনে জয়ের আশা প্রকাশ করে কাদের বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে আগামী নির্বাচনে আমরা জিতব। আবারও ক্ষমতায় ফিরে আসব। শেষ বার্তায় কোনো কাজ হবে না।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জন্য কথায় কথায় চোখের পানি পড়ে। একটা আন্দোলনও কী করেছেন? কোনো দিন? আমাদের নাকি শেষ বার্তা দেবে। ১৫ বছরে কমপক্ষে এক হাজার ৫০০ বার্তা তারা দিয়েছে। আন্দোলন কখনো হয়নি। কাদের বলেন, ‘এখন পকেটে টাকা আছে, তাই গরম গরম কথা বলছে। লন্ডন থেকে এসেছে, পকেট গরম। এখন আর কাঁদে না। এখন খুশিতে ডগমগ। কোনো বার্তায় কাজ হবে না। বাংলাদেশের মানুষ যত দিন শেখ হাসিনার সঙ্গে আছে তত দিন কোনো বার্তা দিয়ে লাভ হবে না।