ঢাকা ০৫:৪৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টিএসসিতে ছাত্রলীগের সমাবেশে দুই গ্রুপের মারামারি

  • ফখরুল ইসলাম
  • আপডেট সময় ১০:৫৩:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪
  • 16

টিএসসিতে ছাত্রলীগের সমাবেশে দুই গ্রুপের মারামারি

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলন ইস্যুতে নিজেদের অবস্থান ও পদক্ষেপ জানান দিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে এক সমাবেশ আয়োজন করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। এ সমাবেশে নিজেদের মধ্যেই হঠাৎ মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মাজহারুল কবির শয়নের বক্তব্য চলাকালীন এ ঘটনা ঘটে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ভালো অবস্থানে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে হাতাহাতি শুরু হয়।

এ সময় ঢাবি সভাপতি মাজহারুল কবির শয়ন বক্তব্য দিচ্ছিলেন। বক্তব্য চলাকালে এক পক্ষ অন্যদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যান গেট পর্যন্ত ধাওয়া করে নিয়ে যায়। পরে ঢাবি সাধারণ সম্পাদক সৈকত নিজে স্টেজ থেকে নেমে নেতাকর্মীদের আলাদা করেন। নেতাকর্মীদের সংগঠিত করতে কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইনান শয়নের হাত থেকে মাইক নিয়ে স্লোগান ধরেন এবং সবাইকে শান্ত হতে নির্দেশনা দেন।

জানা যায়, ঢাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে এ সময় হাতাহাতিতে জড়ান ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নেতাকর্মীরা। পরে বক্তব্যকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘সংগঠনের ডিসসিপ্লিন না মানলে আমরা সময়মতো ব্যবস্থা নেব। আমরা খোঁজ রাখছি, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একাডেমিক পরিবেশ অব্যাহত রাখা, জনদুর্ভোগ তৈরি না করে ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরে আসা এবং সরকারি চাকরিতে কোটা ইস্যুর যৌক্তিক, অন্তর্ভুক্তিমূলক, ইতিবাচক ও যুগোপযোগী সমাধানের দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে ছাত্রলীগ।

টিএসসিতে ছাত্রলীগের সমাবেশে দুই গ্রুপের মারামারি

আপডেট সময় ১০:৫৩:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলন ইস্যুতে নিজেদের অবস্থান ও পদক্ষেপ জানান দিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে এক সমাবেশ আয়োজন করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। এ সমাবেশে নিজেদের মধ্যেই হঠাৎ মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মাজহারুল কবির শয়নের বক্তব্য চলাকালীন এ ঘটনা ঘটে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ভালো অবস্থানে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে হাতাহাতি শুরু হয়।

এ সময় ঢাবি সভাপতি মাজহারুল কবির শয়ন বক্তব্য দিচ্ছিলেন। বক্তব্য চলাকালে এক পক্ষ অন্যদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যান গেট পর্যন্ত ধাওয়া করে নিয়ে যায়। পরে ঢাবি সাধারণ সম্পাদক সৈকত নিজে স্টেজ থেকে নেমে নেতাকর্মীদের আলাদা করেন। নেতাকর্মীদের সংগঠিত করতে কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইনান শয়নের হাত থেকে মাইক নিয়ে স্লোগান ধরেন এবং সবাইকে শান্ত হতে নির্দেশনা দেন।

জানা যায়, ঢাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে এ সময় হাতাহাতিতে জড়ান ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নেতাকর্মীরা। পরে বক্তব্যকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘সংগঠনের ডিসসিপ্লিন না মানলে আমরা সময়মতো ব্যবস্থা নেব। আমরা খোঁজ রাখছি, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একাডেমিক পরিবেশ অব্যাহত রাখা, জনদুর্ভোগ তৈরি না করে ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরে আসা এবং সরকারি চাকরিতে কোটা ইস্যুর যৌক্তিক, অন্তর্ভুক্তিমূলক, ইতিবাচক ও যুগোপযোগী সমাধানের দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে ছাত্রলীগ।