ঢাকা ০৭:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘কোটাধারীরা কিভাবে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবে?’

সরকারি চাকরিতে বৈষম্যমূলক কোটা বাতিলের দাবিতে সারাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ন্যায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) বিক্ষোভ-মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। কোটা বিরোধী বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধরে বক্তব্য দেন শিক্ষার্থীরা। এসময় কোটা ধারীদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে এক শিক্ষার্থী জানতে চান তারা কিভাবে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবে।

বুধবার (১০ জুলাই) শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে নোবিপ্রবির কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে থেকে কোটা বিরোধী বিক্ষোভ র‍যালী বের করে যা পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা কোটার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

কোটা বিরোধী আন্দোলন থেকে বক্তারা বলেন, সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে দেশব্যাপী গণআন্দোলনের সাথে সংহতি জানিয়ে আমরা এখানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি এবং কোটা সংস্কারের জোর দাবি জানাচ্ছি। এসময় বৈষম্যের ঠাঁই নাই আমার সোনার বাংলায়, বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই, জেগেছে রে জেগেছে ছাত্র সমাজ জেগেছে, একাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠো আরেকবার, কোটা না মেধা! মেধা মেধা, সারা বাংলায় খবর দে কোটা রথার খবর দে, স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে উঠে ক্যাম্পাস।

পরবর্তীতে কোটা বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়ে কর্মসূচি সমাপ্ত করে।

‘কোটাধারীরা কিভাবে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবে?’

আপডেট সময় ০৭:৩৮:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

সরকারি চাকরিতে বৈষম্যমূলক কোটা বাতিলের দাবিতে সারাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ন্যায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) বিক্ষোভ-মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। কোটা বিরোধী বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধরে বক্তব্য দেন শিক্ষার্থীরা। এসময় কোটা ধারীদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে এক শিক্ষার্থী জানতে চান তারা কিভাবে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবে।

বুধবার (১০ জুলাই) শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে নোবিপ্রবির কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে থেকে কোটা বিরোধী বিক্ষোভ র‍যালী বের করে যা পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা কোটার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

কোটা বিরোধী আন্দোলন থেকে বক্তারা বলেন, সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে দেশব্যাপী গণআন্দোলনের সাথে সংহতি জানিয়ে আমরা এখানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি এবং কোটা সংস্কারের জোর দাবি জানাচ্ছি। এসময় বৈষম্যের ঠাঁই নাই আমার সোনার বাংলায়, বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই, জেগেছে রে জেগেছে ছাত্র সমাজ জেগেছে, একাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠো আরেকবার, কোটা না মেধা! মেধা মেধা, সারা বাংলায় খবর দে কোটা রথার খবর দে, স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে উঠে ক্যাম্পাস।

পরবর্তীতে কোটা বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়ে কর্মসূচি সমাপ্ত করে।