ঢাকা ০৪:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী কর্তৃক শিক্ষার্থী নির্যাতন: শিবিরের নিন্দা ও প্রতিবাদ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের কর্তৃক শিক্ষার্থী নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির বরিশাল মহানগর শাখা।

সোমবার (১৬ অক্টোবর) এক যৌথ বিবৃতিতে ছাত্রশিবির বরিশাল মহানগর সভাপতি আহমেদ বাইজিদ ও সেক্রেটারি রিয়াজুল ইসলাম বলেন, সরকার ও প্রশাসনের সরাসরি মদদে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা ক্যাম্পাসগুলোকে সন্ত্রাসের আখড়ায় পরিণত করেছে। শিক্ষার্থীদের হলগুলোকে টর্চার সেলে পরিণত করে সেগুলোকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা। সম্প্রতি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী তানজিদ মন্জু (ইংরেজি, ৮ম) ও সিহাব উদ্দিন (ইংরেজি, ৮ম) নেতৃত্বে একজন আবাসিক শিক্ষার্থীকে রাতভর কক্ষে আটকে রেখে মারধর, গালাগাল, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে।  বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের দ্বারা শিক্ষার্থী নির্যাতনের ঘটনা অতীতেও ঘটেছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রশাসনের ছত্রছায়ায় ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা প্রতিটি ক্যাম্পাসে এমন বর্বর নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। স্পষ্টভাবেই সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সাধারণ শিক্ষার্থীদের ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দিচ্ছে। আর ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের শারীরিক মানসিক নির্যাতন করছে। সাধারন শিক্ষার্থীদের ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের মিটিংয়ে যেতে বাধ্য করছে। এভাবেই ক্যাম্পাসে নির্যাতন ও সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে ছাত্রলীগ। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্তরা বারবারই ছাত্রলীগের প্রতি নতজানু নীতি অবলম্বন করে যাচ্ছে। এ অসভ্য বর্বরতা কোন সভ্য রাষ্ট্রের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চিত্র হতে পারে না।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, একজন শিক্ষার্থী সীমাহীন পরিশ্রম ও পড়াশোনা করে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির সুযোগ পায়। অভিভাবকরা এক বুক আশা নিয়ে সন্তানকে মানুষের মতো মানুষ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় পাঠান। জাতি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগামীর দেশ গড়ার কারিগর ও সভ্য মানুষ তৈরি হবে এমনটি প্রত্যাশা করে। কিন্তু ছাত্রলীগ নামক অমানুষদের সন্ত্রাসের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো আজ মানুষ গড়ার স্থান নয়; বরং খুন, নির্যাতন, ধর্ষণ, মাদক, অস্ত্রবাজি, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজিসহ নানা অপকর্মের উর্বর ভূমিতে পরিণত হয়েছে- যা শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও জাতিকে শংকিত করে তুলেছে। এ অবস্থা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। মেধাবী ছাত্রদের ভবিষ্যৎ, অভিভাবকদের স্বপ্ন ও জাতির প্রত্যাশাকে ছাত্রলীগ নামক দানবদের হাতে তুলে দেওয়া যায় না। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী বর্বরতা থেকে ক্যাম্পাস শিক্ষার্থীদের রক্ষা করতে ছাত্র-জনতা ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করতে হবে। ক্যাম্পাসগুলোতে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে। দায়িত্বজ্ঞানহীন সন্ত্রাসের কাছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ব্যর্থতা এ জাতি আর দেখতে চায় না।

ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীদের জান-মাল রক্ষা ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করার জন্য আমরা ছাত্র সমাজ ও সচেতন দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

বেনজীর আহমেদকে আর সময় দেওয়া হবে না: দুদকের আইনজীবী

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী কর্তৃক শিক্ষার্থী নির্যাতন: শিবিরের নিন্দা ও প্রতিবাদ

আপডেট সময় ০৬:১৯:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৬ অক্টোবর ২০২৩

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের কর্তৃক শিক্ষার্থী নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির বরিশাল মহানগর শাখা।

সোমবার (১৬ অক্টোবর) এক যৌথ বিবৃতিতে ছাত্রশিবির বরিশাল মহানগর সভাপতি আহমেদ বাইজিদ ও সেক্রেটারি রিয়াজুল ইসলাম বলেন, সরকার ও প্রশাসনের সরাসরি মদদে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা ক্যাম্পাসগুলোকে সন্ত্রাসের আখড়ায় পরিণত করেছে। শিক্ষার্থীদের হলগুলোকে টর্চার সেলে পরিণত করে সেগুলোকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা। সম্প্রতি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী তানজিদ মন্জু (ইংরেজি, ৮ম) ও সিহাব উদ্দিন (ইংরেজি, ৮ম) নেতৃত্বে একজন আবাসিক শিক্ষার্থীকে রাতভর কক্ষে আটকে রেখে মারধর, গালাগাল, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে।  বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের দ্বারা শিক্ষার্থী নির্যাতনের ঘটনা অতীতেও ঘটেছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রশাসনের ছত্রছায়ায় ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা প্রতিটি ক্যাম্পাসে এমন বর্বর নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। স্পষ্টভাবেই সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সাধারণ শিক্ষার্থীদের ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দিচ্ছে। আর ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের শারীরিক মানসিক নির্যাতন করছে। সাধারন শিক্ষার্থীদের ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের মিটিংয়ে যেতে বাধ্য করছে। এভাবেই ক্যাম্পাসে নির্যাতন ও সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে ছাত্রলীগ। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্তরা বারবারই ছাত্রলীগের প্রতি নতজানু নীতি অবলম্বন করে যাচ্ছে। এ অসভ্য বর্বরতা কোন সভ্য রাষ্ট্রের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চিত্র হতে পারে না।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, একজন শিক্ষার্থী সীমাহীন পরিশ্রম ও পড়াশোনা করে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির সুযোগ পায়। অভিভাবকরা এক বুক আশা নিয়ে সন্তানকে মানুষের মতো মানুষ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় পাঠান। জাতি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগামীর দেশ গড়ার কারিগর ও সভ্য মানুষ তৈরি হবে এমনটি প্রত্যাশা করে। কিন্তু ছাত্রলীগ নামক অমানুষদের সন্ত্রাসের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো আজ মানুষ গড়ার স্থান নয়; বরং খুন, নির্যাতন, ধর্ষণ, মাদক, অস্ত্রবাজি, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজিসহ নানা অপকর্মের উর্বর ভূমিতে পরিণত হয়েছে- যা শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও জাতিকে শংকিত করে তুলেছে। এ অবস্থা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। মেধাবী ছাত্রদের ভবিষ্যৎ, অভিভাবকদের স্বপ্ন ও জাতির প্রত্যাশাকে ছাত্রলীগ নামক দানবদের হাতে তুলে দেওয়া যায় না। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী বর্বরতা থেকে ক্যাম্পাস শিক্ষার্থীদের রক্ষা করতে ছাত্র-জনতা ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করতে হবে। ক্যাম্পাসগুলোতে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে। দায়িত্বজ্ঞানহীন সন্ত্রাসের কাছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ব্যর্থতা এ জাতি আর দেখতে চায় না।

ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীদের জান-মাল রক্ষা ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করার জন্য আমরা ছাত্র সমাজ ও সচেতন দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।