ঢাকা ০৬:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মহাসড়ক অবরোধ করে ফুটবল খেলছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

কোটা পদ্ধতির সংস্কারের দাবি জানিয়ে ফের আন্দোলনে নেমেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীরা। রবিবার (৭ জুলাই) বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের ব্যানারে চতুর্থ দিনের মতো তারা শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ ও সমাবেশ শুরু করেছে।

আন্দোলনে অংশ নিতে সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালের সামনে সমবেত হয় শিক্ষার্থীরা। পরে সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। পরে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে অবস্থান নেন তারা। সেখানে অবস্থানরত অবস্থায় মহাসড়কেই ফুটবল খেলতে দেখা যায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের। এদিকে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বিক্ষোভ মিছিলে ‘স্বাধীন এই বাংলায়, বৈষম্যের ঠাইঁ নাই’, ‘১৮ সালের পরিপত্র, পুনর্বহাল করতে হবে’, ‘কোটাবৈষম্য নিপাত যাক, মেধাবীরা মুক্তি পাক’-সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, ২০১৮ সালে আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার কোটা পদ্ধতি বাতিল করেছিল, সম্প্রতি হাইকোর্ট সেটা পুনর্বহাল করেছেন। আমরা হাইকোর্টের রায়কে প্রত্যাখ্যান করছি। বক্তারা আরও বলেন, চাকরি পরীক্ষা ও ভর্তি পরীক্ষাসহ সবখানে কোটার ছড়াছড়ি। যার ফলে মেধাবীদের বঞ্ছিত করে অপেক্ষাকৃত কম মেধাবীরা এসব ক্ষেত্রে সুবিধা নিচ্ছে। আমরা এই বৈষম্য মানি না। আমাদের আন্দোলন একেবারে কোটা বাতিলের দাবিতে নয়। আমরা চাই ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠন করে সরকারি চাকরিতে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ কোটা রেখে কোটা পদ্ধতির সংস্কার করতে হবে।

মহাসড়ক অবরোধ করে ফুটবল খেলছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

আপডেট সময় ০২:৩৭:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪

কোটা পদ্ধতির সংস্কারের দাবি জানিয়ে ফের আন্দোলনে নেমেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীরা। রবিবার (৭ জুলাই) বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের ব্যানারে চতুর্থ দিনের মতো তারা শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ ও সমাবেশ শুরু করেছে।

আন্দোলনে অংশ নিতে সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালের সামনে সমবেত হয় শিক্ষার্থীরা। পরে সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। পরে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে অবস্থান নেন তারা। সেখানে অবস্থানরত অবস্থায় মহাসড়কেই ফুটবল খেলতে দেখা যায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের। এদিকে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বিক্ষোভ মিছিলে ‘স্বাধীন এই বাংলায়, বৈষম্যের ঠাইঁ নাই’, ‘১৮ সালের পরিপত্র, পুনর্বহাল করতে হবে’, ‘কোটাবৈষম্য নিপাত যাক, মেধাবীরা মুক্তি পাক’-সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, ২০১৮ সালে আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার কোটা পদ্ধতি বাতিল করেছিল, সম্প্রতি হাইকোর্ট সেটা পুনর্বহাল করেছেন। আমরা হাইকোর্টের রায়কে প্রত্যাখ্যান করছি। বক্তারা আরও বলেন, চাকরি পরীক্ষা ও ভর্তি পরীক্ষাসহ সবখানে কোটার ছড়াছড়ি। যার ফলে মেধাবীদের বঞ্ছিত করে অপেক্ষাকৃত কম মেধাবীরা এসব ক্ষেত্রে সুবিধা নিচ্ছে। আমরা এই বৈষম্য মানি না। আমাদের আন্দোলন একেবারে কোটা বাতিলের দাবিতে নয়। আমরা চাই ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠন করে সরকারি চাকরিতে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ কোটা রেখে কোটা পদ্ধতির সংস্কার করতে হবে।