ঢাকা ০৮:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারীর গোসলের ভিডিও করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক পুলিশ সদস্য

গাইবান্ধায় বাথরুমের উপর দিয়ে এক নারীর গোসলের দৃশ্য ভিডিও করার সময় এক পুলিশ সদস্যকে হাতেনাতে আটক করেছে এলাকাবাসী।

শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে শহরের দক্ষিণ ধানগড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটক পুলিশ সদস্যের নাম মো. শাহ আলম। তার পুলিশ আইডি (বিপি ৮৩০২০৮২৫৭১)। তিনি লালমনিরহাট জেলার বানভাসা গ্রামের মৃত জয়নুল হকের ছেলে ও গাইবান্ধা পুলিশ লাইনে কর্মরত বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাইবান্ধা পৌর শহরের দক্ষিণ ধানগড়া এলাকায় এক বাড়ির বাথরুমে গোসল করছিলেন ওই বাড়ির এক নারী। এসময় বাথরুমের উপর দিয়ে মোবাইল ফোন দিয়ে ওই নারীর গোসলের দৃশ্য ধারণ করছিলেন মো. শাহ আলম। ওই নারীর গোসলের ভিডিও করার সময় স্থানীয়রা টের পেয়ে চিৎকার করলে আশপাশের আরো লোকজন ছুটে এসে শাহ আলমকে ধরে ফেলে। পরে গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশ খবর পেয়ে তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

ওই ঘটনার এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘আমি পাশের রাস্তা দিয়ে হাঁটছিলাম। একজন অপরিচিত লোক ওই বাড়ির ছাদ ছাড়া বাথরুমের উপর দিয়ে মোবাইলে ভিডিও করছিল দেখে আমি চিৎকার দিলে তিনি দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। পরে রাস্তায় স্থানীয় লোকজনসহ সবাই মিলে তাকে আটক করা হয়।’

ওই নারীর স্বামী বলেন, ‘আমি বাইরে কাজে গিয়েছিলাম। এসে দেখি লোকজন দিয়ে বাড়ি ভর্তি। বিস্তারিত ঘটনা শুনে খুবই খারাপ লাগছে। একজন রক্ষক এভাবে ভক্ষক হয়! পুলিশ এসে তাদের লোককে নিয়ে গেল। বলে গেল, থানায় অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নিবেন। এভাবে হাতেনাতে ধরার পরও অভিযোগ দেয়া ছাড়া ব্যবস্থা নিবেন না- বিষয়টি শুনে খুব খারাপ লাগছে।’

আটক পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করতে আসা গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আটককৃতকে জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা সদর থানায় নিয়ে যাচ্ছি। তদন্ত করে দেখব ওনি আসলেই পুলিশ সদস্য কিনা? ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগ দিলে অপরাধীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর প্রশ্নই নেই: বাইডেন

নারীর গোসলের ভিডিও করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক পুলিশ সদস্য

আপডেট সময় ০৮:০২:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪

গাইবান্ধায় বাথরুমের উপর দিয়ে এক নারীর গোসলের দৃশ্য ভিডিও করার সময় এক পুলিশ সদস্যকে হাতেনাতে আটক করেছে এলাকাবাসী।

শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে শহরের দক্ষিণ ধানগড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটক পুলিশ সদস্যের নাম মো. শাহ আলম। তার পুলিশ আইডি (বিপি ৮৩০২০৮২৫৭১)। তিনি লালমনিরহাট জেলার বানভাসা গ্রামের মৃত জয়নুল হকের ছেলে ও গাইবান্ধা পুলিশ লাইনে কর্মরত বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাইবান্ধা পৌর শহরের দক্ষিণ ধানগড়া এলাকায় এক বাড়ির বাথরুমে গোসল করছিলেন ওই বাড়ির এক নারী। এসময় বাথরুমের উপর দিয়ে মোবাইল ফোন দিয়ে ওই নারীর গোসলের দৃশ্য ধারণ করছিলেন মো. শাহ আলম। ওই নারীর গোসলের ভিডিও করার সময় স্থানীয়রা টের পেয়ে চিৎকার করলে আশপাশের আরো লোকজন ছুটে এসে শাহ আলমকে ধরে ফেলে। পরে গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশ খবর পেয়ে তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

ওই ঘটনার এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘আমি পাশের রাস্তা দিয়ে হাঁটছিলাম। একজন অপরিচিত লোক ওই বাড়ির ছাদ ছাড়া বাথরুমের উপর দিয়ে মোবাইলে ভিডিও করছিল দেখে আমি চিৎকার দিলে তিনি দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। পরে রাস্তায় স্থানীয় লোকজনসহ সবাই মিলে তাকে আটক করা হয়।’

ওই নারীর স্বামী বলেন, ‘আমি বাইরে কাজে গিয়েছিলাম। এসে দেখি লোকজন দিয়ে বাড়ি ভর্তি। বিস্তারিত ঘটনা শুনে খুবই খারাপ লাগছে। একজন রক্ষক এভাবে ভক্ষক হয়! পুলিশ এসে তাদের লোককে নিয়ে গেল। বলে গেল, থানায় অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নিবেন। এভাবে হাতেনাতে ধরার পরও অভিযোগ দেয়া ছাড়া ব্যবস্থা নিবেন না- বিষয়টি শুনে খুব খারাপ লাগছে।’

আটক পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করতে আসা গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আটককৃতকে জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা সদর থানায় নিয়ে যাচ্ছি। তদন্ত করে দেখব ওনি আসলেই পুলিশ সদস্য কিনা? ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগ দিলে অপরাধীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’