ঢাকা ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মালয়েশিয়ায় অসামাজিক কার্যকলাপে ১৮ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

মালয়েশিয়ায় অসামাজিক কার্যকলাপে ১৮ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

মালয়েশিয়ার ক্লাং ভ্যালীতে ৮টি ম্যাসাজ পার্লারে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে ১৮ বাংলাদেশিসহ মোট ৭৫ জনকে আটক করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ (জিআইএম)। শনিবার (৬ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার জালান তুন রাজাকের ২টি স্থানে এবং কুয়ালালামপুরের জালান পুডু, কাম্পুং বারু সুবাং ও পুচং টাউন সেন্টারে বিশেষ অভিযান চালিয়েছে জিআইএম। শুক্রবার জেআইএম মহাপরিচালক দাতুক রুসলিন জুসোহ এক বিবৃতিতে বলেছেন, জনসাধারণ এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৫৭ নারীসহ ৭৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া ৭৫ জনের মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার ৩২ জন, বাংলাদেশের ১১ জন, ভিয়েতনামের ৮ জন এবং ভারতের ৬ জন নারী। এছাড়াও ৭ জন বাংলাদেশি, ২ জন মিয়ানমার এবং একজন ইন্দোনেশিয়ার পুরুষকেও গ্রেপ্তার করা করেছে। তাদের বয়স ১৭ থেকে ৪৬ এর মধ্যে। এছাড়া ২৩ থেকে ৬৫ বছর বয়সি ৭ জন মালয়েশিয়ান পুরুষ এবং ১ জন নারীকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জেআইএম মহাপরিচালক জানিয়েছেন, পতিতাবৃত্তির অভিযোগ গ্রেপ্তার হওয়া ৫৭ নারী অভিবাসীর মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার ১৩ জন ও ভিয়েতনামের ৪ জনের বৈধ কাগজপত্র ছিল। দুজন ইন্দোনেশিয়ান নারী ও একজন ভিয়েতনামী নারী ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও অবস্থান করেছিলেন। বাকিদের কাছে কোনো ভ্রমণ নথি বা পাস ছিল না। গ্রেপ্তারকৃত সব অভিবাসীকে সেমেনিইহের অভিবাসন অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর প্রশ্নই নেই: বাইডেন

মালয়েশিয়ায় অসামাজিক কার্যকলাপে ১৮ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

আপডেট সময় ০৫:১১:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪

মালয়েশিয়ার ক্লাং ভ্যালীতে ৮টি ম্যাসাজ পার্লারে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে ১৮ বাংলাদেশিসহ মোট ৭৫ জনকে আটক করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ (জিআইএম)। শনিবার (৬ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার জালান তুন রাজাকের ২টি স্থানে এবং কুয়ালালামপুরের জালান পুডু, কাম্পুং বারু সুবাং ও পুচং টাউন সেন্টারে বিশেষ অভিযান চালিয়েছে জিআইএম। শুক্রবার জেআইএম মহাপরিচালক দাতুক রুসলিন জুসোহ এক বিবৃতিতে বলেছেন, জনসাধারণ এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৫৭ নারীসহ ৭৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া ৭৫ জনের মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার ৩২ জন, বাংলাদেশের ১১ জন, ভিয়েতনামের ৮ জন এবং ভারতের ৬ জন নারী। এছাড়াও ৭ জন বাংলাদেশি, ২ জন মিয়ানমার এবং একজন ইন্দোনেশিয়ার পুরুষকেও গ্রেপ্তার করা করেছে। তাদের বয়স ১৭ থেকে ৪৬ এর মধ্যে। এছাড়া ২৩ থেকে ৬৫ বছর বয়সি ৭ জন মালয়েশিয়ান পুরুষ এবং ১ জন নারীকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জেআইএম মহাপরিচালক জানিয়েছেন, পতিতাবৃত্তির অভিযোগ গ্রেপ্তার হওয়া ৫৭ নারী অভিবাসীর মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার ১৩ জন ও ভিয়েতনামের ৪ জনের বৈধ কাগজপত্র ছিল। দুজন ইন্দোনেশিয়ান নারী ও একজন ভিয়েতনামী নারী ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও অবস্থান করেছিলেন। বাকিদের কাছে কোনো ভ্রমণ নথি বা পাস ছিল না। গ্রেপ্তারকৃত সব অভিবাসীকে সেমেনিইহের অভিবাসন অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।