ঢাকা ০৫:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘোড়া জবাই করে মাংস খাওয়ার ভিডিও ভাইরাল, এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি

ঘোড়া জবাই করে মাংস খাওয়ার ভিডিও ভাইরাল, এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি

পাবনার বেড়ায় ঘোড়া জবাই করে এর মাংস খাওয়ার ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুসল্লিরা। তারা ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেছেন। এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে গাঢাকা দিয়েছেন জড়িতরা।

শনিবার (২৯ জুন) রাতে বেড়া উপজেলার হাঁটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা গ্রামের নদীপাড়ে ঘোড়াটি জবাই করা হয়। এলাকার ৬-৭ জন যুবককে সঙ্গে নিয়ে স্থানীয় এক ক্লিনিক মালিক এর নেতৃত্ব দেন।

স্থানীয়রা জানান, বেড়ার একটি ক্লিনিক মালিক মহিউদ্দিন চৌধুরী স্থানীয় মানিক হোসেন, আব্দুস সোবহান, হিরো আলমসহ কয়েক যুবককে ঘোড়ার মাংস খাওয়াবেন বলে তাদের ঘোড়া কেনার জন্য বলেন। তার কথামতো ৬-৭ জন যুবক এক হাজার টাকা দিয়ে একটি রোগাক্রান্ত ঘোড়া কিনে আনেন। এরপর সেই ঘোড়া কিনে তারা আনন্দ-উল্লাস শুরু করেন। যুবকরা বেড়া উপজেলার হাঁটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা নদীর পাড়ে গিয়ে ঘোড়াটি জবাই করেন। তারা এ ঘটনার ভিডিও ধারণ করেন এবং মাংস রান্না করে সবাই মিলে খেয়ে ফেলেন।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর সোমবার (১ জুলাই) বিকেলে পেঁচাকোলা চারমাথা মোড় এলাকার মুসল্লি ও সাধারণ জনতা বিক্ষোভ করেন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন তারা।

ভিডিও দেখেছেন জানিয়ে বেড়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি ধর্মীয় বিষয় নিয়ে কিছু বলতে চাচ্ছি না। তবে ঘোড়ার মাংসের ফাইবার মোটা এবং এটার স্বাদ আমাদের দেশি গরু-ছাগলের মতো ভালো না। চর্বির পরিমাণটা কম আছে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশে ঘোড়ার সংখ্যা বেশি না। আমরা যদি এভাবে ঘোড়াকে মাংস হিসেবে খাই, তাহলে একসময় আমাদের দেশে ঘোড়ার সংখ্যা বিলুপ্তির পথে চলে যাবে।

বেড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশিদুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে কেউ লিখিত অভিযোগ দেননি। অভিযোগ ফেলে বিষয়টি আইনগতভাবে খতিয়ে দেখা হবে।

ঘোড়া জবাই করে মাংস খাওয়ার ভিডিও ভাইরাল, এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি

আপডেট সময় ০৭:৫৪:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

পাবনার বেড়ায় ঘোড়া জবাই করে এর মাংস খাওয়ার ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুসল্লিরা। তারা ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেছেন। এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে গাঢাকা দিয়েছেন জড়িতরা।

শনিবার (২৯ জুন) রাতে বেড়া উপজেলার হাঁটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা গ্রামের নদীপাড়ে ঘোড়াটি জবাই করা হয়। এলাকার ৬-৭ জন যুবককে সঙ্গে নিয়ে স্থানীয় এক ক্লিনিক মালিক এর নেতৃত্ব দেন।

স্থানীয়রা জানান, বেড়ার একটি ক্লিনিক মালিক মহিউদ্দিন চৌধুরী স্থানীয় মানিক হোসেন, আব্দুস সোবহান, হিরো আলমসহ কয়েক যুবককে ঘোড়ার মাংস খাওয়াবেন বলে তাদের ঘোড়া কেনার জন্য বলেন। তার কথামতো ৬-৭ জন যুবক এক হাজার টাকা দিয়ে একটি রোগাক্রান্ত ঘোড়া কিনে আনেন। এরপর সেই ঘোড়া কিনে তারা আনন্দ-উল্লাস শুরু করেন। যুবকরা বেড়া উপজেলার হাঁটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা নদীর পাড়ে গিয়ে ঘোড়াটি জবাই করেন। তারা এ ঘটনার ভিডিও ধারণ করেন এবং মাংস রান্না করে সবাই মিলে খেয়ে ফেলেন।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর সোমবার (১ জুলাই) বিকেলে পেঁচাকোলা চারমাথা মোড় এলাকার মুসল্লি ও সাধারণ জনতা বিক্ষোভ করেন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন তারা।

ভিডিও দেখেছেন জানিয়ে বেড়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি ধর্মীয় বিষয় নিয়ে কিছু বলতে চাচ্ছি না। তবে ঘোড়ার মাংসের ফাইবার মোটা এবং এটার স্বাদ আমাদের দেশি গরু-ছাগলের মতো ভালো না। চর্বির পরিমাণটা কম আছে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশে ঘোড়ার সংখ্যা বেশি না। আমরা যদি এভাবে ঘোড়াকে মাংস হিসেবে খাই, তাহলে একসময় আমাদের দেশে ঘোড়ার সংখ্যা বিলুপ্তির পথে চলে যাবে।

বেড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশিদুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে কেউ লিখিত অভিযোগ দেননি। অভিযোগ ফেলে বিষয়টি আইনগতভাবে খতিয়ে দেখা হবে।