ঢাকা ০৬:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৃষ্টির দিনে কেন খিচুড়ি খেতে ইচ্ছে হয়?

ষড়ঋতুর দেশ বাংলাদেশে বর্ষাকালের শুরু হয় আষাঢ় মাস দিয়েই। আষাঢ় মানেই আবহমান বাঙলার প্রকৃতিতে বৃষ্টির আনাগোনা। আর বৃষ্টি মানেই বাসায় থাকা। বিভিন্ন রেসিপিতে খিচুড়ির স্বাদ নেওয়া। বৃষ্টির দিনে খিচুড়ি খাওয়ার চলন বাঙালির বহুদিনের।

খিচুড়ি নানা ধরনের হয়। এখন তো শুকনো খিচুড়ি, পাতলা খিচুড়ি থেকে শুরু করে সবজি খিচুড়ির মতো নানা ধরনের খিচুড়ি তৈরি করেন অনেকেই। খিচুড়ির সঙ্গে এখন বেগুন ভাজা, ডিম অমলেট, ইলিশ মাছ ভাজার মতো পদের সঙ্গে দেওয়া হয়। তবে বেশির ভাগ মানুষের কাছে প্রিয় হচ্ছে গরুর মাংসের সঙ্গে খিচুড়ি।

খিচুড়ি মূলত বাউলদের খাবার। এই ছন্নছাড়া গানপাগল মানুষগুলো পথেঘাটে গান করতেন, গ্রামে পাড়ায় পাড়ায় গান করতেন আর তখন দক্ষিণা হিসেবে পেতেন চাল-ডাল। তাই তারা চাল ডাল একত্রে মিলিয়ে খুব দ্রুত ও ঝামেলা মুক্তভাবে রেঁধে খেয়ে নিতেন। কালক্রমে এই খাবারের নাম হয় খিচুড়ি।

এছাড়া আরেকটি যে লৌকিক কারণ রয়েছে তা হলো, গ্রামাঞ্চলে রান্নাঘর সাধারণ ঘরের বাইরে; ফলে বৃষ্টি হলেই ভিজে যেত চুলা। তাই সহজেই চাল ডাল ও সবজি মিলিয়ে খুব দ্রুত রান্না করা হতো খিচুড়ি। এসব কারণেই বৃষ্টির দিনের সঙ্গে মিলে মিশে একাকার হয়ে গেছে খিচুড়ি সংস্কৃতি।

অনেকে আবার বৈজ্ঞানিক কারণ হিসেবে বলে থাকেন, খিচুড়ি একটি গুরুপাক খাবার। এই খাবার খেলে হজমের সমস্যাও হতে পারে। তাছাড়া একত্রে অনেক সবজি বা উপাদান থাকায় এই খাবার গরমের সময় খেলে হজম ও পেটের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। তাই বৃষ্টির দিনের ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় খিচুড়ি খায় মানুষ; যাতে সমস্যায় পড়তে না হয়।

ট্যাগস :

বৃষ্টির দিনে কেন খিচুড়ি খেতে ইচ্ছে হয়?

আপডেট সময় ০৩:৩০:০০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

ষড়ঋতুর দেশ বাংলাদেশে বর্ষাকালের শুরু হয় আষাঢ় মাস দিয়েই। আষাঢ় মানেই আবহমান বাঙলার প্রকৃতিতে বৃষ্টির আনাগোনা। আর বৃষ্টি মানেই বাসায় থাকা। বিভিন্ন রেসিপিতে খিচুড়ির স্বাদ নেওয়া। বৃষ্টির দিনে খিচুড়ি খাওয়ার চলন বাঙালির বহুদিনের।

খিচুড়ি নানা ধরনের হয়। এখন তো শুকনো খিচুড়ি, পাতলা খিচুড়ি থেকে শুরু করে সবজি খিচুড়ির মতো নানা ধরনের খিচুড়ি তৈরি করেন অনেকেই। খিচুড়ির সঙ্গে এখন বেগুন ভাজা, ডিম অমলেট, ইলিশ মাছ ভাজার মতো পদের সঙ্গে দেওয়া হয়। তবে বেশির ভাগ মানুষের কাছে প্রিয় হচ্ছে গরুর মাংসের সঙ্গে খিচুড়ি।

খিচুড়ি মূলত বাউলদের খাবার। এই ছন্নছাড়া গানপাগল মানুষগুলো পথেঘাটে গান করতেন, গ্রামে পাড়ায় পাড়ায় গান করতেন আর তখন দক্ষিণা হিসেবে পেতেন চাল-ডাল। তাই তারা চাল ডাল একত্রে মিলিয়ে খুব দ্রুত ও ঝামেলা মুক্তভাবে রেঁধে খেয়ে নিতেন। কালক্রমে এই খাবারের নাম হয় খিচুড়ি।

এছাড়া আরেকটি যে লৌকিক কারণ রয়েছে তা হলো, গ্রামাঞ্চলে রান্নাঘর সাধারণ ঘরের বাইরে; ফলে বৃষ্টি হলেই ভিজে যেত চুলা। তাই সহজেই চাল ডাল ও সবজি মিলিয়ে খুব দ্রুত রান্না করা হতো খিচুড়ি। এসব কারণেই বৃষ্টির দিনের সঙ্গে মিলে মিশে একাকার হয়ে গেছে খিচুড়ি সংস্কৃতি।

অনেকে আবার বৈজ্ঞানিক কারণ হিসেবে বলে থাকেন, খিচুড়ি একটি গুরুপাক খাবার। এই খাবার খেলে হজমের সমস্যাও হতে পারে। তাছাড়া একত্রে অনেক সবজি বা উপাদান থাকায় এই খাবার গরমের সময় খেলে হজম ও পেটের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। তাই বৃষ্টির দিনের ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় খিচুড়ি খায় মানুষ; যাতে সমস্যায় পড়তে না হয়।