ঢাকা ০৬:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পেনশন স্কিমের প্রতিবাদে কর্মবিরতিতে পাবিপ্রবি শিক্ষকরা, বন্ধ ক্লাস-পরীক্ষা

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের জন্য সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু হচ্ছে আজ সোমবার থেকে। এ পেনশন স্কিম প্রত্যয় প্রত্যাহারের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। কর্মবিরতির কারণে ক্লাস-পরীক্ষাও বন্ধ রয়েছে। তার অংশ হিসেবে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও কর্মবিরতি কর্মসূচী পালন করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সামনে এক ঘণ্টা অবস্থান ধর্মঘট করেন শিক্ষকরা। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাস পরীক্ষা বয়কটের ঘোষণা দেয় শিক্ষকরা।

শিক্ষকরা বলছেন, এই পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন হলে জুলাই থেকে যোগদান করা শিক্ষকরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ফলে শিক্ষকতা পেশায় আসতে মেধাবীরা আগ্রহী হবে না। বৈষম্যমূলক ও মর্যাদাহানিকর প্রত্যয় স্কিম থেকে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তি প্রত্যাহার, শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তন, প্রতিশ্রুত সুপার গ্রেডে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তির দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালিত হবে।

শিক্ষকরা আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের যে ফাঁকি দেওয়ার অপচেষ্টা চলছে, তা কখনোই হতে দেওয়া হবে না। আমরা প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলতে চাই, আপনি বিচক্ষণতার সঙ্গে আমাদের সমস্যার সমাধান করবেন। আমরা মনে করি, একদল কুচক্রী মহল সরকারের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের দূরত্ব সৃষ্টির জন্য এমন হঠকারী সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

উল্লেখ্য, গত ১৩ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের স্বশাসিত, স্বায়ত্তশাসিত পেনশন ‘প্রত্যয়’ স্কিমে আনার প্রজ্ঞাপন জারির পর থেকেই প্রতিবাদ জানাচ্ছেন শিক্ষকরা।

ট্যাগস :

পেনশন স্কিমের প্রতিবাদে কর্মবিরতিতে পাবিপ্রবি শিক্ষকরা, বন্ধ ক্লাস-পরীক্ষা

আপডেট সময় ০৬:২৬:১৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের জন্য সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু হচ্ছে আজ সোমবার থেকে। এ পেনশন স্কিম প্রত্যয় প্রত্যাহারের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। কর্মবিরতির কারণে ক্লাস-পরীক্ষাও বন্ধ রয়েছে। তার অংশ হিসেবে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও কর্মবিরতি কর্মসূচী পালন করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সামনে এক ঘণ্টা অবস্থান ধর্মঘট করেন শিক্ষকরা। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাস পরীক্ষা বয়কটের ঘোষণা দেয় শিক্ষকরা।

শিক্ষকরা বলছেন, এই পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন হলে জুলাই থেকে যোগদান করা শিক্ষকরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ফলে শিক্ষকতা পেশায় আসতে মেধাবীরা আগ্রহী হবে না। বৈষম্যমূলক ও মর্যাদাহানিকর প্রত্যয় স্কিম থেকে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তি প্রত্যাহার, শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তন, প্রতিশ্রুত সুপার গ্রেডে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তির দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালিত হবে।

শিক্ষকরা আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের যে ফাঁকি দেওয়ার অপচেষ্টা চলছে, তা কখনোই হতে দেওয়া হবে না। আমরা প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলতে চাই, আপনি বিচক্ষণতার সঙ্গে আমাদের সমস্যার সমাধান করবেন। আমরা মনে করি, একদল কুচক্রী মহল সরকারের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের দূরত্ব সৃষ্টির জন্য এমন হঠকারী সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

উল্লেখ্য, গত ১৩ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের স্বশাসিত, স্বায়ত্তশাসিত পেনশন ‘প্রত্যয়’ স্কিমে আনার প্রজ্ঞাপন জারির পর থেকেই প্রতিবাদ জানাচ্ছেন শিক্ষকরা।