ঢাকা ০৭:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

লালমনিরহাটের কালিগঞ্জ উপজেলার লোহাকুচি সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

বুধবার (২৬ জুন) রাতে উপজেলার গোড়ল ইউনিয়নের লোহাকুচি গ্রামের ৯১৯ নম্বর সীমান্ত পিলার এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম নুরুল ইসলাম (৬০)। তিনি ওই ইউনিয়নের লোহাকুচি গ্রামের মৃত্যু মইনুদ্দিনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে লোহাকুচি বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় সীমান্ত পিলার ৯১৯ এর নিকট হতে ১০০ গজ ভারতের অভ্যন্তরে মালগারা নামক স্থানে চার থেকে পাঁচজন চোরাকারবারি অবৈধভাবে গরু প্রবেশ করলে ভারতীয় অংশের কোচবিহার জেলার সিতাই থানার ৭৮ বিএসএফ ব্যাটালিয়ন ওয়েস্ট চামটা ক্যাম্পের টহল দল তাদেরকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এতে নুরুল আমিন গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে মৃত্যুবরণ করেন।

পরে অন্যান্যরা মরদেহটি উদ্ধার করে বাংলাদেশে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে কালীগঞ্জ গোড়ল তদন্ত ফাঁড়ির পুলিশ খবর পেয়ে বিজিবির সহায়তা মরদেহ উদ্ধার করে ফাঁড়ি হেফাজতে নিয়ে আসে। বর্তমানে মরদেহটি কালিগঞ্জ উপজেলার গোড়ল তদন্ত ফাঁড়ির হেফাজতে রয়েছে। আইনি কার্যক্রম শেষে পরিবারের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হবে।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট ১৫ বিজিবি অধিনায়ক লে. ক. মোফাজ্জল হোসেন আকন্দ বলেন, চোরাকারবারি করতে গিয়ে ভারতে প্রবেশ করলে সেখানে বিএসএফ গুলি ছুড়ে। এতে একজন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। আমি ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছি। এ বিষয়ে পতাকা বৈঠকের আহ্বান জানানো হয়েছে। বৈঠকে প্রতিবাদ জানানো হবে।

লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

আপডেট সময় ০৬:০২:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪

লালমনিরহাটের কালিগঞ্জ উপজেলার লোহাকুচি সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

বুধবার (২৬ জুন) রাতে উপজেলার গোড়ল ইউনিয়নের লোহাকুচি গ্রামের ৯১৯ নম্বর সীমান্ত পিলার এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম নুরুল ইসলাম (৬০)। তিনি ওই ইউনিয়নের লোহাকুচি গ্রামের মৃত্যু মইনুদ্দিনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে লোহাকুচি বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় সীমান্ত পিলার ৯১৯ এর নিকট হতে ১০০ গজ ভারতের অভ্যন্তরে মালগারা নামক স্থানে চার থেকে পাঁচজন চোরাকারবারি অবৈধভাবে গরু প্রবেশ করলে ভারতীয় অংশের কোচবিহার জেলার সিতাই থানার ৭৮ বিএসএফ ব্যাটালিয়ন ওয়েস্ট চামটা ক্যাম্পের টহল দল তাদেরকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এতে নুরুল আমিন গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে মৃত্যুবরণ করেন।

পরে অন্যান্যরা মরদেহটি উদ্ধার করে বাংলাদেশে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে কালীগঞ্জ গোড়ল তদন্ত ফাঁড়ির পুলিশ খবর পেয়ে বিজিবির সহায়তা মরদেহ উদ্ধার করে ফাঁড়ি হেফাজতে নিয়ে আসে। বর্তমানে মরদেহটি কালিগঞ্জ উপজেলার গোড়ল তদন্ত ফাঁড়ির হেফাজতে রয়েছে। আইনি কার্যক্রম শেষে পরিবারের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হবে।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট ১৫ বিজিবি অধিনায়ক লে. ক. মোফাজ্জল হোসেন আকন্দ বলেন, চোরাকারবারি করতে গিয়ে ভারতে প্রবেশ করলে সেখানে বিএসএফ গুলি ছুড়ে। এতে একজন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। আমি ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছি। এ বিষয়ে পতাকা বৈঠকের আহ্বান জানানো হয়েছে। বৈঠকে প্রতিবাদ জানানো হবে।