ঢাকা ০৬:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রোটিয়াদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ৭৭ রানে অলআউট লঙ্কানরা

প্রোটিয়াদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ৭৭ রানে অলআউট লঙ্কানরা

নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে লঙ্কান অধিনায়ক জানিয়েছিলেন, ব্যাটিং উইকেট। যে কারণে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিলে ভালো হবে।

কিন্তু লঙ্কান অধিনায়কের ধারণাকে সম্পূর্ণ ভুল প্রমাণ করলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা। কিংবা শ্রীলঙ্কান ব্যাটারদের ব্যর্থতার অধিনায়কের সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণ করলো। সে যাই হোক, প্রোটিয়া বোলারদের বোলিং তোপে ১৯.১ ওভারে মাত্র ৭৭ রানেই অলআউট হয়ে গেলো শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই প্রোটিয়া বোলারদের তেপের মুখে পড়ে লঙ্কান ব্যাটাররা। মাত্র ৩ রান করে আউট হন পাথুম নিশাঙ্কা। কুশল মেন্ডিস করেন সর্বোচ্চ ১৯ রান। কামিন্দু মেন্ডিসের ব্যাট থেকে আসে ১১ রান।

ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা এবং সাদিরা সামারাবিক্রমা রানের খাতাই খুলতে পারেননি। ৬ রান করে বিদায় নেন চারিথ আশালঙ্কা। ১৬ রান করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যথিউজ। দাসুন শানাকা আউট হন ৯ রান করে। ৭ রান আসে মহেশ থিকসানার ব্যাট থেকে। তিনি ছিলেন অপরাজিত। মাথিসা পাথিরানা, নুয়ান থুসারা আউট হন কোনো রান না করেই।

প্রোটিয়া পেসার অ্যানরিখ নরকিয়া ছিলেন সবচেয়ে বিধ্বংসী। ৪ ওভারে ৭ রান দিয়ে তিনি নেন ৪ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা এবং কেশভ মাহারাজ। ১টি নেন ওটনিয়েল বার্টম্যান।

প্রোটিয়াদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ৭৭ রানে অলআউট লঙ্কানরা

আপডেট সময় ১০:৩৬:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪

নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে লঙ্কান অধিনায়ক জানিয়েছিলেন, ব্যাটিং উইকেট। যে কারণে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিলে ভালো হবে।

কিন্তু লঙ্কান অধিনায়কের ধারণাকে সম্পূর্ণ ভুল প্রমাণ করলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা। কিংবা শ্রীলঙ্কান ব্যাটারদের ব্যর্থতার অধিনায়কের সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণ করলো। সে যাই হোক, প্রোটিয়া বোলারদের বোলিং তোপে ১৯.১ ওভারে মাত্র ৭৭ রানেই অলআউট হয়ে গেলো শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই প্রোটিয়া বোলারদের তেপের মুখে পড়ে লঙ্কান ব্যাটাররা। মাত্র ৩ রান করে আউট হন পাথুম নিশাঙ্কা। কুশল মেন্ডিস করেন সর্বোচ্চ ১৯ রান। কামিন্দু মেন্ডিসের ব্যাট থেকে আসে ১১ রান।

ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা এবং সাদিরা সামারাবিক্রমা রানের খাতাই খুলতে পারেননি। ৬ রান করে বিদায় নেন চারিথ আশালঙ্কা। ১৬ রান করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যথিউজ। দাসুন শানাকা আউট হন ৯ রান করে। ৭ রান আসে মহেশ থিকসানার ব্যাট থেকে। তিনি ছিলেন অপরাজিত। মাথিসা পাথিরানা, নুয়ান থুসারা আউট হন কোনো রান না করেই।

প্রোটিয়া পেসার অ্যানরিখ নরকিয়া ছিলেন সবচেয়ে বিধ্বংসী। ৪ ওভারে ৭ রান দিয়ে তিনি নেন ৪ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা এবং কেশভ মাহারাজ। ১টি নেন ওটনিয়েল বার্টম্যান।