ঢাকা ১০:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গভীর রাতে দরজা ভেঙে এ্যানিকে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ

গভীর রাতে দরজা ভেঙে এ্যানিকে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ

বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিকে গভীর রাতে দরজা ভেঙে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ধানমন্ডির বাসা তাঁকে আটক করে ধানমন্ডি থানার পুলিশ।

আজ বুধবার সকালে বিএনপির মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জহির উদ্দিন স্বপন এ্যানিকে আটকের বিষয়টি জানান। জহির উদ্দিন স্বপন বলেন, মধ্যরাতে এ্যানিকে দরজা ভেঙে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ। জহির উদ্দিন স্বপন বলেন, ‘বুধবার সকাল ১০টার পর এ্যানির ভাইকে পুলিশ জানিয়েছে, এ্যানি ধানমন্ডি থানায় নেই। তবে কোথায় আছে তারা জানে না।

বিএনপির এই নেতাকে বাড়ি থেকে তুলে আনার বিষয়ে জানতে ধানমন্ডি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পারভেজ ইসলামকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল করা হলেও রিসিভ করেননি এবং মেসেজ পাঠালেও তিনি কোনো জবাব দেননি। তবে থানার ডিউটি অফিসার উপপরিদর্শক আছিয়া খানম বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারব না। ওসি স্যারের সঙ্গে কথা বলেন।’

এদিকে শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিকে গভীর রাতে দরজা ভেঙে তুলে নেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এই নিন্দা জানান। রিজভী বলেন, চারদিক থেকে সরকারপতনের আওয়াজ ওঠায় তারা বেসামাল হয়ে আবারও গ্রেপ্তার, নির্যাতন ও ফরমায়েশি রায়ের মাধ্যমে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের সাজা দেওয়া শুরু করেছে। কিন্তু এসব করে তাদের শেষ রক্ষা হবে না।

রিজভী বলেন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি সব মামলায় জামিনে থাকার পরও তাঁকে বাসা থেকে ডাকাতদের মতো তুলে নিয়ে আসা মানে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করা, কিন্তু জনগণ আর নিপীড়নকে ভয় পায় না। বাংলাদেশের জনগণসহ বিশ্ববাসী বিশ্বাস করে তারা আর জোর করে ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। সুতরাং যতই গ্রেপ্তার-নির্যাতন হোক না কেন, পতন ঠেকানো যাবে না। রিজভী আহমেদ অবিলম্বে শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির মুক্তি দাবি করেন।

গভীর রাতে দরজা ভেঙে এ্যানিকে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ

আপডেট সময় ০১:২৬:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ অক্টোবর ২০২৩

বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিকে গভীর রাতে দরজা ভেঙে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ধানমন্ডির বাসা তাঁকে আটক করে ধানমন্ডি থানার পুলিশ।

আজ বুধবার সকালে বিএনপির মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জহির উদ্দিন স্বপন এ্যানিকে আটকের বিষয়টি জানান। জহির উদ্দিন স্বপন বলেন, মধ্যরাতে এ্যানিকে দরজা ভেঙে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ। জহির উদ্দিন স্বপন বলেন, ‘বুধবার সকাল ১০টার পর এ্যানির ভাইকে পুলিশ জানিয়েছে, এ্যানি ধানমন্ডি থানায় নেই। তবে কোথায় আছে তারা জানে না।

বিএনপির এই নেতাকে বাড়ি থেকে তুলে আনার বিষয়ে জানতে ধানমন্ডি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পারভেজ ইসলামকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল করা হলেও রিসিভ করেননি এবং মেসেজ পাঠালেও তিনি কোনো জবাব দেননি। তবে থানার ডিউটি অফিসার উপপরিদর্শক আছিয়া খানম বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারব না। ওসি স্যারের সঙ্গে কথা বলেন।’

এদিকে শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিকে গভীর রাতে দরজা ভেঙে তুলে নেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এই নিন্দা জানান। রিজভী বলেন, চারদিক থেকে সরকারপতনের আওয়াজ ওঠায় তারা বেসামাল হয়ে আবারও গ্রেপ্তার, নির্যাতন ও ফরমায়েশি রায়ের মাধ্যমে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের সাজা দেওয়া শুরু করেছে। কিন্তু এসব করে তাদের শেষ রক্ষা হবে না।

রিজভী বলেন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি সব মামলায় জামিনে থাকার পরও তাঁকে বাসা থেকে ডাকাতদের মতো তুলে নিয়ে আসা মানে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করা, কিন্তু জনগণ আর নিপীড়নকে ভয় পায় না। বাংলাদেশের জনগণসহ বিশ্ববাসী বিশ্বাস করে তারা আর জোর করে ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। সুতরাং যতই গ্রেপ্তার-নির্যাতন হোক না কেন, পতন ঠেকানো যাবে না। রিজভী আহমেদ অবিলম্বে শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির মুক্তি দাবি করেন।