ঢাকা ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
কিশোরকণ্ঠ জাতীয় সায়েন্স ফিকশন লেখা প্রতিযোগিতা ২০২৩-এর পুরস্কার প্রদান কারামুক্ত নেতাদের নিয়ে রাজধানীতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল হস্তান্তর অনুষ্ঠিত আমার নাম শুনলেই প্রধানমন্ত্রী বলেন আমি সুদখোর: ড. মুহাম্মদ ইউনূস যুক্তরাষ্ট্রের উপসহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বিএনপি বৈঠক ‘বঙ্গবন্ধু’-অ্যাপ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বিএনপির সময়ে ১৮ ঘণ্টা লোডশেডিং থাকত-ওবায়দুল কাদের আমরা গৃহপালিত দল হয়ে গেছি : জিএম কাদের পিরোজপুরে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ সভাপতিকে কুপিয়ে জখম আর কোনো রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়া সম্ভব নয়: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিয়ানমারের শরণার্থী শিবিরে সামরিক হামলা নিহত অন্তত ২৯

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১২:১৬:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর ২০২৩
  • ১৯৬ বার পড়া হয়েছে

মিয়ানমারের শরণার্থী শিবিরে সামরিক হামলা নিহত অন্তত ২৯

চীনের সীমান্তবর্তী মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে একটি শরণার্থীশিবিরে সামরিক হামলায় শিশুসহ অন্তত ২৯ জন নিহত এবং আরো ৫৬ জন আহত হয়েছে। স্থানীয় সময় সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে চীনের সীমান্তবর্তী কাচিনের লাইজা শহরের কাছের ওই শিবিরে এই হামলা চালানো হয়।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, সোমবার গভীর রাতে কাচিন রাজ্যের লাইজা শহরের কাছে এই শিবিরে আঘাত হানে সেনারা। ক্যাম্পটি কাচিন ইনডিপেনডেন্স আর্মির সদর দপ্তর থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে।খিত থিট নিউজ এজেন্সি বলছে, হামলায় ১৩ শিশুসহ অন্তত ৩২ জন নিহত হয়েছে। কাচিন নিউজ গ্রুপ জানিয়েছে, হামলায় ৩০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এদিকে মিটকিনা নিউজ জার্নাল জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে তিন মাস বয়সী একটি শিশুও রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ছবিগুলোতে দেখা যাচ্ছে, উদ্ধারকারীরা অন্ধকারে মৃতদেহ উদ্ধার করছে।

কাচিন ইনডিপেনডেন্স আর্মির (কেআইএ) কর্নেল নাও বু এএফপিকে জানিয়েছেন, সোমবার রাত ১১টা ৩০ মিনিটের দিকে সর্বশেষ হামলাটি ঘটে। তিনি বলেন, ‘আমরা শিশু এবং বয়স্ক মানুষসহ ২৯ জনের মৃতদেহ পেয়েছি… ৫৬ জন আহত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা কোনো বিমানের শব্দ শুনিনি।’ তিনি উল্লেখ করেছেন, ক্যাম্প লক্ষ্য করে সামরিক ড্রোন ব্যবহার করা হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা ছবিতে দেখা গেছে, উদ্ধারকারীরা কাঠের ধ্বংসাবশেষের নিচ থেকে অন্তত ১০টি মৃতদেহ উদ্ধার করে মাটিতে সারিবদ্ধ করে রেখেছেন। কর্নেল নও বু বলেন, লাইজার কাছে একটি হাসপাতালে ৪২ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

২০২১ সালে সামরিক বাহিনী অং সান সু চিকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর থেকে কাচিন রাজ্যে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। স্থানীয় পর্যবেক্ষণ গ্রুপ অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারস (এএপিপি) অনুসারে, অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরুর পর থেকে হাজার হাজার মানুষ গ্রেপ্তার হয়েছে এবং চার হাজার ১০০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। কেআইএ কাচিনের বিস্তীর্ণ অংশ নিয়ন্ত্রণ করে।

সেখানে রয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম জেড খনি। কয়েক দশক ধরে সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ চলছে তাদের। গত বছরের অক্টোবরে কেআইএ আয়োজিত একটি কনসার্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিমান হামলায় প্রায় ৫০ জন নিহত এবং ৭০ জন আহত হয়। তবে দেশটির জান্তা সরকার জানায়, বিমান হামলায় বেসামরিক লোক নিহত হওয়ার খবর গুজব।

জনপ্রিয় সংবাদ

কিশোরকণ্ঠ জাতীয় সায়েন্স ফিকশন লেখা প্রতিযোগিতা ২০২৩-এর পুরস্কার প্রদান

মিয়ানমারের শরণার্থী শিবিরে সামরিক হামলা নিহত অন্তত ২৯

আপডেট সময় ১২:১৬:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর ২০২৩

চীনের সীমান্তবর্তী মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে একটি শরণার্থীশিবিরে সামরিক হামলায় শিশুসহ অন্তত ২৯ জন নিহত এবং আরো ৫৬ জন আহত হয়েছে। স্থানীয় সময় সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে চীনের সীমান্তবর্তী কাচিনের লাইজা শহরের কাছের ওই শিবিরে এই হামলা চালানো হয়।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, সোমবার গভীর রাতে কাচিন রাজ্যের লাইজা শহরের কাছে এই শিবিরে আঘাত হানে সেনারা। ক্যাম্পটি কাচিন ইনডিপেনডেন্স আর্মির সদর দপ্তর থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে।খিত থিট নিউজ এজেন্সি বলছে, হামলায় ১৩ শিশুসহ অন্তত ৩২ জন নিহত হয়েছে। কাচিন নিউজ গ্রুপ জানিয়েছে, হামলায় ৩০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এদিকে মিটকিনা নিউজ জার্নাল জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে তিন মাস বয়সী একটি শিশুও রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ছবিগুলোতে দেখা যাচ্ছে, উদ্ধারকারীরা অন্ধকারে মৃতদেহ উদ্ধার করছে।

কাচিন ইনডিপেনডেন্স আর্মির (কেআইএ) কর্নেল নাও বু এএফপিকে জানিয়েছেন, সোমবার রাত ১১টা ৩০ মিনিটের দিকে সর্বশেষ হামলাটি ঘটে। তিনি বলেন, ‘আমরা শিশু এবং বয়স্ক মানুষসহ ২৯ জনের মৃতদেহ পেয়েছি… ৫৬ জন আহত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা কোনো বিমানের শব্দ শুনিনি।’ তিনি উল্লেখ করেছেন, ক্যাম্প লক্ষ্য করে সামরিক ড্রোন ব্যবহার করা হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা ছবিতে দেখা গেছে, উদ্ধারকারীরা কাঠের ধ্বংসাবশেষের নিচ থেকে অন্তত ১০টি মৃতদেহ উদ্ধার করে মাটিতে সারিবদ্ধ করে রেখেছেন। কর্নেল নও বু বলেন, লাইজার কাছে একটি হাসপাতালে ৪২ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

২০২১ সালে সামরিক বাহিনী অং সান সু চিকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর থেকে কাচিন রাজ্যে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। স্থানীয় পর্যবেক্ষণ গ্রুপ অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারস (এএপিপি) অনুসারে, অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরুর পর থেকে হাজার হাজার মানুষ গ্রেপ্তার হয়েছে এবং চার হাজার ১০০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। কেআইএ কাচিনের বিস্তীর্ণ অংশ নিয়ন্ত্রণ করে।

সেখানে রয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম জেড খনি। কয়েক দশক ধরে সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ চলছে তাদের। গত বছরের অক্টোবরে কেআইএ আয়োজিত একটি কনসার্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিমান হামলায় প্রায় ৫০ জন নিহত এবং ৭০ জন আহত হয়। তবে দেশটির জান্তা সরকার জানায়, বিমান হামলায় বেসামরিক লোক নিহত হওয়ার খবর গুজব।