ঢাকা ০৬:২৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিউ ইয়র্ক সিটিতে বন্যা, জরুরি অবস্থা ঘোষণা

নিউ ইয়র্ক সিটিতে বন্যা, জরুরি অবস্থা ঘোষণা

শক্তিশালী ঝড় ও ভারি বৃষ্টিপাতে আকস্মিক বন্যায় নিউ ইয়র্ক সিটিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। আকস্মিক বন্যায় শহরের অনেক পাতাল রেল, রাস্তা এবং মহাসড়ক প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া লগার্ডিয়া বিমানবন্দরের অন্তত একটি টার্মিনাল শুক্রবার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শহরের কিছু অংশে ৮ ইঞ্চি (২০ সেমি) পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে এবং শুক্রবারের পরেও আরো বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

গভর্নর ক্যাথি হচুল বলেছেন, ‘ঝড়টি খুব বিপজ্জনক ছিল। সমগ্র অঞ্চল জুড়ে যে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হয়েছে, আমি নিউ ইয়র্ক সিটি, লং আইল্যান্ড এবং হাডসন উপত্যকা জুড়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছি। তিনি জনগণকে নিরাপদে থাকতে বলেছেন এবং প্লাবিত রাস্তায় ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকতে বলেছেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মৃত্যু বা গুরুতর আহতের খবর পাওয়া যায়নি।

নিউ ইয়র্ক সিটি থেকে হাডসন নদীর ওপারে নিউ জার্সির শহর হোবোকেনেও জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। নিউ ইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক অ্যাডামস জনগণকে সতর্ক করে বলেছেন, জরুরি অবস্থা জারি করার সময় এটি। তিনি এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন, ‘আমাদের কিছু সাবওয়ে প্লাবিত হয়েছে এবং শহরের চারপাশে চলাফেরা করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়েছে।’ দেশটির মেট্রোপলিটন ট্রান্সপোর্টেশন এজেন্সি অনুসারে, বন্যা নিউ ইয়র্কের পাতাল রেল ব্যবস্থা এবং মেট্রো উত্তর কমিউটার রেল পরিষেবাতে বড় ধরনের ব্যাঘাত ঘটিয়েছে।

কিছু পাতাল রেল চলাচল সম্পূর্ণরূপে স্থগিত করা হয়েছে এবং অনেক স্টেশন বন্ধ ছিল। শহরের উত্তরে অবস্থিত ওয়েস্টচেস্টার কাউন্টি উপশহর মামারনেকে জরুরি কর্মকর্তারা বন্যার কারণে ভবনে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধার করেছেন। বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, হাঁটু পর্যন্ত পানির মধ্য দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা বেশ কিছু ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সাবওয়ে স্টেশনের ছাদ এবং প্ল্যাটফরমে পানি ঢুকে পড়ছে।

 

জনপ্রিয় সংবাদ

নিউ ইয়র্ক সিটিতে বন্যা, জরুরি অবস্থা ঘোষণা

আপডেট সময় ১১:৫৭:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩

শক্তিশালী ঝড় ও ভারি বৃষ্টিপাতে আকস্মিক বন্যায় নিউ ইয়র্ক সিটিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। আকস্মিক বন্যায় শহরের অনেক পাতাল রেল, রাস্তা এবং মহাসড়ক প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া লগার্ডিয়া বিমানবন্দরের অন্তত একটি টার্মিনাল শুক্রবার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শহরের কিছু অংশে ৮ ইঞ্চি (২০ সেমি) পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে এবং শুক্রবারের পরেও আরো বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

গভর্নর ক্যাথি হচুল বলেছেন, ‘ঝড়টি খুব বিপজ্জনক ছিল। সমগ্র অঞ্চল জুড়ে যে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হয়েছে, আমি নিউ ইয়র্ক সিটি, লং আইল্যান্ড এবং হাডসন উপত্যকা জুড়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছি। তিনি জনগণকে নিরাপদে থাকতে বলেছেন এবং প্লাবিত রাস্তায় ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকতে বলেছেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মৃত্যু বা গুরুতর আহতের খবর পাওয়া যায়নি।

নিউ ইয়র্ক সিটি থেকে হাডসন নদীর ওপারে নিউ জার্সির শহর হোবোকেনেও জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। নিউ ইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক অ্যাডামস জনগণকে সতর্ক করে বলেছেন, জরুরি অবস্থা জারি করার সময় এটি। তিনি এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন, ‘আমাদের কিছু সাবওয়ে প্লাবিত হয়েছে এবং শহরের চারপাশে চলাফেরা করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়েছে।’ দেশটির মেট্রোপলিটন ট্রান্সপোর্টেশন এজেন্সি অনুসারে, বন্যা নিউ ইয়র্কের পাতাল রেল ব্যবস্থা এবং মেট্রো উত্তর কমিউটার রেল পরিষেবাতে বড় ধরনের ব্যাঘাত ঘটিয়েছে।

কিছু পাতাল রেল চলাচল সম্পূর্ণরূপে স্থগিত করা হয়েছে এবং অনেক স্টেশন বন্ধ ছিল। শহরের উত্তরে অবস্থিত ওয়েস্টচেস্টার কাউন্টি উপশহর মামারনেকে জরুরি কর্মকর্তারা বন্যার কারণে ভবনে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধার করেছেন। বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, হাঁটু পর্যন্ত পানির মধ্য দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা বেশ কিছু ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সাবওয়ে স্টেশনের ছাদ এবং প্ল্যাটফরমে পানি ঢুকে পড়ছে।