ঢাকা ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কানাডায় সব খুনির আশ্রয়স্থল হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কানাডায় সব খুনির আশ্রয়স্থল হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

খুনিরা কানাডায় গিয়ে আশ্রয় নিতে ও সুন্দর জীবনযাপন করতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডা আশ্রয় দেওয়ার প্রেক্ষাপটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই মন্তব্য করেন। ইন্ডিয়া টুডেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, কানাডা অবশ্যই সব খুনির আশ্রয়স্থল হবে না। খুনিরা কানাডায় গিয়ে আশ্রয় নিতে পারে এবং তারা সুন্দর জীবনযাপন করতে পারে।

তারা (খুনিরা) যাদের হত্যা করেছে, তাদের স্বজনরা কষ্ট পাচ্ছে। কানাডায় আশ্রয় পাওয়া নূর চৌধুরীর বাংলাদেশের আদালতে মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিচার বিভাগ খুবই স্বাধীন এবং সরকার এতে হস্তক্ষেপ করতে পারে না। তবে, তার (নূর চৌধুরী) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সুযোগ রয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, কানাডায় আশ্রয় নেওয়া নূর চৌধুরী এবং যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নেওয়া রাশেদ চৌধুরী দেশে ফিরে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করতে পারেন।

রাষ্ট্রপতি তাদের প্রাণভিক্ষার আবেদন মঞ্জুর করে মৃত্যুদণ্ড থেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে পরিবর্তন করতে পারেন। মানবাধিকারের নামে খুনি, সন্ত্রাসীদের রক্ষার বিষয়েও কথা বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক সময় অনেক লোকের দ্বারা মানবাধিকারের ধারণার অপব্যবহার করা হচ্ছে। এটি সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। কারণ এটি অনেক সময় খুনি এবং সন্ত্রাসীদের রক্ষা করার জন্য কিছু লোকের জন্য একটি অজুহাত হয়ে উঠেছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

কানাডায় সব খুনির আশ্রয়স্থল হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৮:৪০:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

খুনিরা কানাডায় গিয়ে আশ্রয় নিতে ও সুন্দর জীবনযাপন করতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডা আশ্রয় দেওয়ার প্রেক্ষাপটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই মন্তব্য করেন। ইন্ডিয়া টুডেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, কানাডা অবশ্যই সব খুনির আশ্রয়স্থল হবে না। খুনিরা কানাডায় গিয়ে আশ্রয় নিতে পারে এবং তারা সুন্দর জীবনযাপন করতে পারে।

তারা (খুনিরা) যাদের হত্যা করেছে, তাদের স্বজনরা কষ্ট পাচ্ছে। কানাডায় আশ্রয় পাওয়া নূর চৌধুরীর বাংলাদেশের আদালতে মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিচার বিভাগ খুবই স্বাধীন এবং সরকার এতে হস্তক্ষেপ করতে পারে না। তবে, তার (নূর চৌধুরী) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সুযোগ রয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, কানাডায় আশ্রয় নেওয়া নূর চৌধুরী এবং যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নেওয়া রাশেদ চৌধুরী দেশে ফিরে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করতে পারেন।

রাষ্ট্রপতি তাদের প্রাণভিক্ষার আবেদন মঞ্জুর করে মৃত্যুদণ্ড থেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে পরিবর্তন করতে পারেন। মানবাধিকারের নামে খুনি, সন্ত্রাসীদের রক্ষার বিষয়েও কথা বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক সময় অনেক লোকের দ্বারা মানবাধিকারের ধারণার অপব্যবহার করা হচ্ছে। এটি সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। কারণ এটি অনেক সময় খুনি এবং সন্ত্রাসীদের রক্ষা করার জন্য কিছু লোকের জন্য একটি অজুহাত হয়ে উঠেছে।