ঢাকা ০৩:১৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিতে প্রস্তুত ফ্রান্স

  • ফখরুল ইসলাম
  • আপডেট সময় ০৯:৫৩:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 74

ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিতে প্রস্তুত ফ্রান্স

ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিতে ফ্রান্স প্রস্তুত। ইসরায়েলি বিরোধিতার কারণে দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হলে প্যারিস এই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। শুক্রবার দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এ কথা বলেছেন। ফ্রান্স এককভাবে ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসাবে স্বীকৃতি দিলে দখলকৃত অঞ্চলটিতে পরিবর্তন খুব কমই হতে পারে। তবে প্রতীকী এবং কূটনৈতিকভাবে এটি গুরুত্বপূর্ণ।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার বিরোধিতা করে বলেছেন, তিনি জর্ডানের পশ্চিমে ইসরায়েলের সম্পূর্ণ নিরাপত্তা নিয়ন্ত্রণে আপস করবেন না। তারা ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের সম্পূর্ণ বিরোধী।

ফরাসি আইনপ্রণেতারা ২০১৪ সালে তাদের সরকারকে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য আহ্বান জানাতে ভোট দিয়েছিলেন। এটি একটি প্রতীকী পদক্ষেপ যা ফ্রান্সের কূটনৈতিক অবস্থানে সামান্য প্রভাব ফেলেছিল।

ম্যাক্রোঁ প্যারিসে জর্ডানের রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহর পাশে দাঁড়িয়ে বলেছেন, ‘এই অঞ্চলে আমাদের অংশীদাররা, বিশেষ করে জর্ডান, এটি নিয়ে কাজ করছে, আমরা তাদের সাথে এটি নিয়ে কাজ করছি। আমরা ইউরোপে ও নিরাপত্তা পরিষদে এতে অবদান রাখতে প্রস্তুত। ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি ফ্রান্সের জন্য নিষিদ্ধ নয়।’

জনপ্রিয় সংবাদ

ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিতে প্রস্তুত ফ্রান্স

আপডেট সময় ০৯:৫৩:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিতে ফ্রান্স প্রস্তুত। ইসরায়েলি বিরোধিতার কারণে দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হলে প্যারিস এই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। শুক্রবার দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এ কথা বলেছেন। ফ্রান্স এককভাবে ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসাবে স্বীকৃতি দিলে দখলকৃত অঞ্চলটিতে পরিবর্তন খুব কমই হতে পারে। তবে প্রতীকী এবং কূটনৈতিকভাবে এটি গুরুত্বপূর্ণ।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার বিরোধিতা করে বলেছেন, তিনি জর্ডানের পশ্চিমে ইসরায়েলের সম্পূর্ণ নিরাপত্তা নিয়ন্ত্রণে আপস করবেন না। তারা ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের সম্পূর্ণ বিরোধী।

ফরাসি আইনপ্রণেতারা ২০১৪ সালে তাদের সরকারকে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য আহ্বান জানাতে ভোট দিয়েছিলেন। এটি একটি প্রতীকী পদক্ষেপ যা ফ্রান্সের কূটনৈতিক অবস্থানে সামান্য প্রভাব ফেলেছিল।

ম্যাক্রোঁ প্যারিসে জর্ডানের রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহর পাশে দাঁড়িয়ে বলেছেন, ‘এই অঞ্চলে আমাদের অংশীদাররা, বিশেষ করে জর্ডান, এটি নিয়ে কাজ করছে, আমরা তাদের সাথে এটি নিয়ে কাজ করছি। আমরা ইউরোপে ও নিরাপত্তা পরিষদে এতে অবদান রাখতে প্রস্তুত। ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি ফ্রান্সের জন্য নিষিদ্ধ নয়।’