ঢাকা ০৪:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করলেন মেয়র আইভী

দলের ত্যাগী ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের বাদ দিয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের ১৭টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী।

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগ এলাকায় ১৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত এক বৈঠকে তিনি এই ঘোষণা সেলিনা হায়াৎ আইভী। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি তিনি।

বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি আসাদুজ্জামান, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, উপ-দপ্তর সম্পাদক সানোয়ার তালুকদারসহ আওয়ামী লীগ নেতারা।

বৈঠক শেষে সন্ধ্যা সাতটার দিকে ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী মনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ক্ষুব্ধ পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা শহরের দুই নম্বর রেলগেইট এলাকায় অবস্থিত মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ সময় তারা ঘোষিত ওয়ার্ড কমিটি ভুয়া ও সেখানে যোগ্যদের বঞ্চিত করা হয়েছে বলে দাবি করে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।

মেয়র আইভী বলেন, ‘সিদ্ধিরগঞ্জের ৯টি ওয়ার্ডে কমিটি করা হয় নাই। কারণ সেটা এমপি শামীম ওসমানের এলাকা। তিনি বলেছেন, তার এলাকা নিজের মতো করে কমিটি করবেন। তাহলে বলতে চাই, আমার নির্বাচনী এলাকার ২৭টি ওয়ার্ড। তাহলে কোন অধিকারে আপনারা আমাকে না জিজ্ঞেস করেই ১৭টি ওয়ার্ডে কমিটি দেন? আমি ১৭টি ওয়ার্ডে পাল্টা কমিটি দেব। এক ওয়ার্ডের লোক এনে আরেক ওয়ার্ডে বসিয়েছেন। এগুলো কি ছেলেখেলা নাকি? আজকে বাধ্য হয়েছি। আমি তো আর শামীম ভাইয়ের মতো বলতে পারব না, আমার এলাকায় এটা করতে পারবেন না। কিন্তু আমার মতামত না নিয়ে যদি কমিটি করেন, সিনিয়রদের অসম্মানিত করেন, তাহলে পাল্টা কমিটি দেব।’

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের মুঠোফোন নম্বরে রাত পৌনে এগারোটা পর্যন্ত কয়েকবার কল দিলেও তিনি সাড়া দেননি।

বৈঠকে উপস্থিত জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগ নেতা মেয়র আইভী। তাকে না জানিয়ে ও জ্যেষ্ঠদের বাদ দিয়ে কম গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বানানো হয়েছে। মেয়রকে জিজ্ঞেস করে তার ওয়ার্ডে কমিটি দেওয়া উচিত ছিল বলে মনে করেন জাহাঙ্গীর আলম।

জনপ্রিয় সংবাদ

মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করলেন মেয়র আইভী

আপডেট সময় ০২:৪৪:০৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

দলের ত্যাগী ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের বাদ দিয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের ১৭টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী।

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগ এলাকায় ১৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত এক বৈঠকে তিনি এই ঘোষণা সেলিনা হায়াৎ আইভী। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি তিনি।

বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি আসাদুজ্জামান, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, উপ-দপ্তর সম্পাদক সানোয়ার তালুকদারসহ আওয়ামী লীগ নেতারা।

বৈঠক শেষে সন্ধ্যা সাতটার দিকে ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী মনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ক্ষুব্ধ পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা শহরের দুই নম্বর রেলগেইট এলাকায় অবস্থিত মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ সময় তারা ঘোষিত ওয়ার্ড কমিটি ভুয়া ও সেখানে যোগ্যদের বঞ্চিত করা হয়েছে বলে দাবি করে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।

মেয়র আইভী বলেন, ‘সিদ্ধিরগঞ্জের ৯টি ওয়ার্ডে কমিটি করা হয় নাই। কারণ সেটা এমপি শামীম ওসমানের এলাকা। তিনি বলেছেন, তার এলাকা নিজের মতো করে কমিটি করবেন। তাহলে বলতে চাই, আমার নির্বাচনী এলাকার ২৭টি ওয়ার্ড। তাহলে কোন অধিকারে আপনারা আমাকে না জিজ্ঞেস করেই ১৭টি ওয়ার্ডে কমিটি দেন? আমি ১৭টি ওয়ার্ডে পাল্টা কমিটি দেব। এক ওয়ার্ডের লোক এনে আরেক ওয়ার্ডে বসিয়েছেন। এগুলো কি ছেলেখেলা নাকি? আজকে বাধ্য হয়েছি। আমি তো আর শামীম ভাইয়ের মতো বলতে পারব না, আমার এলাকায় এটা করতে পারবেন না। কিন্তু আমার মতামত না নিয়ে যদি কমিটি করেন, সিনিয়রদের অসম্মানিত করেন, তাহলে পাল্টা কমিটি দেব।’

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের মুঠোফোন নম্বরে রাত পৌনে এগারোটা পর্যন্ত কয়েকবার কল দিলেও তিনি সাড়া দেননি।

বৈঠকে উপস্থিত জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগ নেতা মেয়র আইভী। তাকে না জানিয়ে ও জ্যেষ্ঠদের বাদ দিয়ে কম গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বানানো হয়েছে। মেয়রকে জিজ্ঞেস করে তার ওয়ার্ডে কমিটি দেওয়া উচিত ছিল বলে মনে করেন জাহাঙ্গীর আলম।