ঢাকা ০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অভিনেত্রী কবিতা চৌধুরী আর নেই

  • ফখরুল ইসলাম
  • আপডেট সময় ০৬:৫৩:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 51

অভিনেত্রী কবিতা চৌধুরী আর নেই

আশি ও নব্বইয়ের দশকে ভারতীয় টিভির পর্দার পরিচিত মুখ কবিতা চৌধুরী মারা গেছেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গুজরাটের একটি হাসপাতালে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। ১৯৮৯ সালে শুরু হওয়া ধারাবাহিক ‘উড়ান’-এ অভিনয় দিয়ে দর্শকমনে ছাপ ফেলেছিলেন কবিতা।

আইপিএস অফিসার কল্যাণী সিংয়ের চরিত্র তাঁকে রাতারাতি খ্যাতির শিখরে পৌঁছে দিয়েছিল। কবিতা চৌধুরীর সার্ফের বিজ্ঞাপনও বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। সেখানে আবার হোমমেকার ললিতাজির চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এ ছাড়াও জনপ্রিয় সব বিজ্ঞাপনে দেখা যেত তাঁকে। কবিতার ঘনিষ্ঠ বন্ধু সুচিত্রা বার্মা জানান, ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন অভিনেত্রী। কেমোথেরাপিও চলছিল তাঁর। অভিনেত্রীর বন্ধু জানান, তিনি খুবই কষ্টে ছিলেন। সুচিত্রার কথায়, ‘আমার খুব নিঃসঙ্গ লাগছে।

ওকে হারিয়ে ফেললাম। হঠাৎ করে ওর অবস্থা এতটা খারাপ হয়ে যাবে বুঝতে পারিনি। শেষবারের মতো দেখতেও পেলাম না। কবিতা চৌধুরীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী-রাজনীতিবিদ স্মৃতি ইরানিও। ‘উড়ান’ দ্বারা প্রভাবিত ছিলেন স্মৃতি।

তিনি বলেন, কিছু মানুষের জন্য উড়ান শুধুই একটি ধারাবাহিক ছিল। আমার কাছে এটি কঠিন পরিস্থিতি উতরে নিজেকে মুক্ত করার আহ্বান ছিল।সত্তর ও আশির দশকে একাধিক উল্লেখযোগ্য কাজ করেছিলেন কবিতা চৌধুরী। তাঁর দৃঢ় এবং সাবলীল অভিনয় দর্শকদের মন জয় করেছিল। ব্যক্তিজীবনেও তাঁর যাপন ছিল অনুপ্রেরণাদায়ক। তাঁর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ ইন্ডাস্ট্রি।

জনপ্রিয় সংবাদ

অভিনেত্রী কবিতা চৌধুরী আর নেই

আপডেট সময় ০৬:৫৩:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

আশি ও নব্বইয়ের দশকে ভারতীয় টিভির পর্দার পরিচিত মুখ কবিতা চৌধুরী মারা গেছেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গুজরাটের একটি হাসপাতালে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। ১৯৮৯ সালে শুরু হওয়া ধারাবাহিক ‘উড়ান’-এ অভিনয় দিয়ে দর্শকমনে ছাপ ফেলেছিলেন কবিতা।

আইপিএস অফিসার কল্যাণী সিংয়ের চরিত্র তাঁকে রাতারাতি খ্যাতির শিখরে পৌঁছে দিয়েছিল। কবিতা চৌধুরীর সার্ফের বিজ্ঞাপনও বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। সেখানে আবার হোমমেকার ললিতাজির চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এ ছাড়াও জনপ্রিয় সব বিজ্ঞাপনে দেখা যেত তাঁকে। কবিতার ঘনিষ্ঠ বন্ধু সুচিত্রা বার্মা জানান, ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন অভিনেত্রী। কেমোথেরাপিও চলছিল তাঁর। অভিনেত্রীর বন্ধু জানান, তিনি খুবই কষ্টে ছিলেন। সুচিত্রার কথায়, ‘আমার খুব নিঃসঙ্গ লাগছে।

ওকে হারিয়ে ফেললাম। হঠাৎ করে ওর অবস্থা এতটা খারাপ হয়ে যাবে বুঝতে পারিনি। শেষবারের মতো দেখতেও পেলাম না। কবিতা চৌধুরীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী-রাজনীতিবিদ স্মৃতি ইরানিও। ‘উড়ান’ দ্বারা প্রভাবিত ছিলেন স্মৃতি।

তিনি বলেন, কিছু মানুষের জন্য উড়ান শুধুই একটি ধারাবাহিক ছিল। আমার কাছে এটি কঠিন পরিস্থিতি উতরে নিজেকে মুক্ত করার আহ্বান ছিল।সত্তর ও আশির দশকে একাধিক উল্লেখযোগ্য কাজ করেছিলেন কবিতা চৌধুরী। তাঁর দৃঢ় এবং সাবলীল অভিনয় দর্শকদের মন জয় করেছিল। ব্যক্তিজীবনেও তাঁর যাপন ছিল অনুপ্রেরণাদায়ক। তাঁর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ ইন্ডাস্ট্রি।