ঢাকা ০৩:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিচ্ছে ইউরোপের ২ দেশ, প্রস্তুত নরওয়েও মুন্সিগঞ্জের আওয়ামী লীগের দু-পক্ষরে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত ১ কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় নববধূকে ছাত্রলীগ নেতার অপহরণ ঈদের মাঝেই বাংলাদেশের বুকে ঘটে গেলো নজিরবিহীন একটি ঘটনা পাবনায় তিন দিনব্যাপী ৭০০ বছরের পুরোনো চড়ক পূজা শুরু মধ্যরাতে আড্ডারত ছাত্রলীগের এক গ্রুপের ওপর অপর গ্রুপের হামলা, আহত ৪ একজন মানবিক চেয়ারম্যানের গল্প জাতীয় ঈদগাহে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত উদীয়মান সাংবাদিকদের নিয়ে গাজীপুর রাইটার্স ফোরামের ইফতার রমজানে ছিন্নমূল মানুষের জন্য “সচেতন নাগরিক ফরম-সনা‌ফ” এর নানা আয়োজন।

জুলাইয়ে বাড়তে পারে মেট্রোরেলের ভাড়া

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১২:১৬:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 52

মেট্রো রেলের টিকিটের ওপর ১৫% মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) আরোপের কথা ভাবছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। আগামী বাজেটে মেট্রো রেলের টিকিটে ভ্যাট যোগ করার এনবিআরের পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে। তবে এটি যাত্রীদের জন্য মেট্রোরেল যাতায়াত আরও ব্যয়বহুল করে তুলবে।

১৫% ভ্যাট আরোপের পর সর্বনিম্ন দূরত্বের জন্য ন্যূনতম টিকিটের মূল্য বর্তমান টাকা ২০ থেকে ২৩ টাকায় বৃদ্ধি পাবে। সর্বোচ্চ দূরত্বের টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা থেকে বেড়ে ১১৫ টাকা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এনবিআরের এক কর্মকর্তা বলেন, “সরকারি নির্দেশনা অনুসারে এনবিআর গত বছর মেট্রো রেলের টিকিটের মূল্যের উপর ভ্যাট ছাড় দিয়েছিল। মূলত কাজ শেষ না হওয়ায় ও পুরোপুরি চালু না হওয়ায় এই ছাড় দেওয়া হয়েছিল। এখন, এনবিআর এই খাত থেকে আরও রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যে সেই ছাড় প্রত্যাহার করার লক্ষ্য নিয়েছে।”

এনবিআর সূত্র আরও জানায়, সিদ্ধান্তটি জানাতে তারা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) সঙ্গে বৈঠকের আয়োজন করবে।

ডিএমটিসিএলের উপ-প্রকল্প পরিচালক (জনসংযোগ) নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, “এখন পর্যন্ত (১৩ ফেব্রুয়ারি, সন্ধ্যা), আমরা এই বিষয়ে এনবিআর থেকে কিছু শুনিনি। আমি আপনার কাছ থেকে টিকিটের উপর ভ্যাট সম্পর্কে জানতে পেরেছি। তবে টিকিটে আলাদাভাবে ভ্যাট যুক্ত কোনো সুযোগ আছে বলে আমি মনে করি না। কারণ আমরা আমাদের সামগ্রিক আয়ের উপর বার্ষিক ভ্যাট কর দিচ্ছি বা দেব।”

তিনি বলেন, “গত দুই সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে ২.৭৫ লাখ যাত্রী মেট্রো রেল ব্যবহার করছেন। এরমধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক যাত্রী ছিল ২.৯৫ লাখ। টিকিট বিক্রির আয়ের বিষয়ে তিনি যাত্রী সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধির ওপর জোর দেন। ট্রেনের ব্যবধান কমার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রী সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। অতএব, শুধুমাত্র গত বছরের তথ্যের উপর ভিত্তি করে ভবিষ্যত আয়ের চিন্তা করা সঠিক নাও হতে পারে।”

বর্তমান যাত্রী সংখ্যার উপর ভিত্তি করে অনুমান, যদি ২.৭৫ লাখ যাত্রীর প্রত্যেকে গড়ে ৫০ টাকা খরচ করে, তাহলে মোট আয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় ১.৩৭ কোটি টাকা।

তিনি বলেন, “ডিএমটিসিএল প্রায় তিন লাখ কার্ড ইস্যু করেছে, যদিও তাদের র‍্যাপিড পাস ব্যবহারের হালনাগাদ তথ্য নেই।”

কর সংক্রান্ত, একজন কর্মকর্তা উল্লেখ জানান, এনবিআর ভ্যাট আইন অনুসারে, মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন ২০১২-এর ধারা ২৬-এ বর্ণিত হিসেবে এসি এবং নন-এসি রেলওয়ে পরিষেবা ১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য। যেহেতু মেট্রো রেল পরিষেবা সম্পূর্ণরূপে তাপমাত্রা-নিয়ন্ত্রিত, তারা এই ভ্যাট প্রবিধানের অধীনে পড়ে।

১৫% ভ্যাট যোগ করলে রাষ্ট্রীয় কোষাগারের জন্য অতিরিক্ত ২০.২৫ লাখ টাকা রাজস্ব আসবে, বার্ষিক অতিরিক্ত ৭৪ কোটি টাকা অবদান রাখবে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিচ্ছে ইউরোপের ২ দেশ, প্রস্তুত নরওয়েও

জুলাইয়ে বাড়তে পারে মেট্রোরেলের ভাড়া

আপডেট সময় ১২:১৬:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

মেট্রো রেলের টিকিটের ওপর ১৫% মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) আরোপের কথা ভাবছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। আগামী বাজেটে মেট্রো রেলের টিকিটে ভ্যাট যোগ করার এনবিআরের পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে। তবে এটি যাত্রীদের জন্য মেট্রোরেল যাতায়াত আরও ব্যয়বহুল করে তুলবে।

১৫% ভ্যাট আরোপের পর সর্বনিম্ন দূরত্বের জন্য ন্যূনতম টিকিটের মূল্য বর্তমান টাকা ২০ থেকে ২৩ টাকায় বৃদ্ধি পাবে। সর্বোচ্চ দূরত্বের টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা থেকে বেড়ে ১১৫ টাকা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এনবিআরের এক কর্মকর্তা বলেন, “সরকারি নির্দেশনা অনুসারে এনবিআর গত বছর মেট্রো রেলের টিকিটের মূল্যের উপর ভ্যাট ছাড় দিয়েছিল। মূলত কাজ শেষ না হওয়ায় ও পুরোপুরি চালু না হওয়ায় এই ছাড় দেওয়া হয়েছিল। এখন, এনবিআর এই খাত থেকে আরও রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যে সেই ছাড় প্রত্যাহার করার লক্ষ্য নিয়েছে।”

এনবিআর সূত্র আরও জানায়, সিদ্ধান্তটি জানাতে তারা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) সঙ্গে বৈঠকের আয়োজন করবে।

ডিএমটিসিএলের উপ-প্রকল্প পরিচালক (জনসংযোগ) নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, “এখন পর্যন্ত (১৩ ফেব্রুয়ারি, সন্ধ্যা), আমরা এই বিষয়ে এনবিআর থেকে কিছু শুনিনি। আমি আপনার কাছ থেকে টিকিটের উপর ভ্যাট সম্পর্কে জানতে পেরেছি। তবে টিকিটে আলাদাভাবে ভ্যাট যুক্ত কোনো সুযোগ আছে বলে আমি মনে করি না। কারণ আমরা আমাদের সামগ্রিক আয়ের উপর বার্ষিক ভ্যাট কর দিচ্ছি বা দেব।”

তিনি বলেন, “গত দুই সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে ২.৭৫ লাখ যাত্রী মেট্রো রেল ব্যবহার করছেন। এরমধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক যাত্রী ছিল ২.৯৫ লাখ। টিকিট বিক্রির আয়ের বিষয়ে তিনি যাত্রী সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধির ওপর জোর দেন। ট্রেনের ব্যবধান কমার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রী সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। অতএব, শুধুমাত্র গত বছরের তথ্যের উপর ভিত্তি করে ভবিষ্যত আয়ের চিন্তা করা সঠিক নাও হতে পারে।”

বর্তমান যাত্রী সংখ্যার উপর ভিত্তি করে অনুমান, যদি ২.৭৫ লাখ যাত্রীর প্রত্যেকে গড়ে ৫০ টাকা খরচ করে, তাহলে মোট আয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় ১.৩৭ কোটি টাকা।

তিনি বলেন, “ডিএমটিসিএল প্রায় তিন লাখ কার্ড ইস্যু করেছে, যদিও তাদের র‍্যাপিড পাস ব্যবহারের হালনাগাদ তথ্য নেই।”

কর সংক্রান্ত, একজন কর্মকর্তা উল্লেখ জানান, এনবিআর ভ্যাট আইন অনুসারে, মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন ২০১২-এর ধারা ২৬-এ বর্ণিত হিসেবে এসি এবং নন-এসি রেলওয়ে পরিষেবা ১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য। যেহেতু মেট্রো রেল পরিষেবা সম্পূর্ণরূপে তাপমাত্রা-নিয়ন্ত্রিত, তারা এই ভ্যাট প্রবিধানের অধীনে পড়ে।

১৫% ভ্যাট যোগ করলে রাষ্ট্রীয় কোষাগারের জন্য অতিরিক্ত ২০.২৫ লাখ টাকা রাজস্ব আসবে, বার্ষিক অতিরিক্ত ৭৪ কোটি টাকা অবদান রাখবে।