ঢাকা ০৫:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপি নেতা চাঁদের তিন বছরের কারাদণ্ড

বিএনপি নেতা চাঁদের তিন বছরের কারাদণ্ড

অর্থ আত্মসাৎ ও প্রতারণার মামলায় রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন রাজশাহীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১। গতকাল রবিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আল্লাম এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৪ সালে আবু সাঈদ চাঁদ, আলিম উদ্দিন এবং ওয়াজনবী নামে তিনজন রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় বামনদিঘি চরঝিকড়া টেকনিক্যাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। এদের মধ্যে আবু সাঈদ চাঁদ প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হন। আর প্রধান শিক্ষক হন আলিম উদ্দিন। মাসুদ রানা নামে এক চাকরিপ্রার্থী ২০০৭ সালে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় অভিযোগ আনা হয়, স্কুলে নিয়োগের আশ্বাস দিয়ে কয়েকজনের কাছ থেকে ১৪ লাখ ৫২ হাজার টাকা গ্রহণ করেছেন আসামিরা। মাসুদ রানাকে নিয়োগ দেওয়া হলেও তার কোনো বেতন হয়নি।

তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন যে, স্কুলটির কোনো অনুমোদন না থাকা সত্বেও আসামিরা জেনে-শুনে ভুয়া নিয়োগপত্র প্রদান করেছেন এবং এভাবে কয়েকজনের কাছ থেকে ১৪ লাখ ৫২ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। ওই সময় চারঘাটের শলুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন জেলা বিএনপির বর্তমান আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ। প্রধানমন্ত্রীকে ‘হত্যার হুমকি’ দেওয়ার মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে তিনি কয়েকমাস ধরেই কারাগারে আছনে। তবে প্রতারণার মামলার রায় ঘোষণার সময় তাকে আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল।

রায় ঘোষণার পর তাকে আবার রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়েছে। আদালতে আসামিপক্ষের হয়ে মামলাটি পরিচালনা করেন রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী শামসাদ বেগম মিতালী। তিনি বলেন, আদালত আবু সাঈদ চাঁদকে ৩ বছরের কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। অন্য দুই আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে। এ মামলার সঙ্গে আবু সাঈদ চাঁদ কোনভাবে জড়িত না। এ রায়ের বিরুদ্ধে তারা আপিল করবেন।

বেনজীর আহমেদকে আর সময় দেওয়া হবে না: দুদকের আইনজীবী

বিএনপি নেতা চাঁদের তিন বছরের কারাদণ্ড

আপডেট সময় ০৬:৪০:১১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

অর্থ আত্মসাৎ ও প্রতারণার মামলায় রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন রাজশাহীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১। গতকাল রবিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আল্লাম এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৪ সালে আবু সাঈদ চাঁদ, আলিম উদ্দিন এবং ওয়াজনবী নামে তিনজন রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় বামনদিঘি চরঝিকড়া টেকনিক্যাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। এদের মধ্যে আবু সাঈদ চাঁদ প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হন। আর প্রধান শিক্ষক হন আলিম উদ্দিন। মাসুদ রানা নামে এক চাকরিপ্রার্থী ২০০৭ সালে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় অভিযোগ আনা হয়, স্কুলে নিয়োগের আশ্বাস দিয়ে কয়েকজনের কাছ থেকে ১৪ লাখ ৫২ হাজার টাকা গ্রহণ করেছেন আসামিরা। মাসুদ রানাকে নিয়োগ দেওয়া হলেও তার কোনো বেতন হয়নি।

তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন যে, স্কুলটির কোনো অনুমোদন না থাকা সত্বেও আসামিরা জেনে-শুনে ভুয়া নিয়োগপত্র প্রদান করেছেন এবং এভাবে কয়েকজনের কাছ থেকে ১৪ লাখ ৫২ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। ওই সময় চারঘাটের শলুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন জেলা বিএনপির বর্তমান আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ। প্রধানমন্ত্রীকে ‘হত্যার হুমকি’ দেওয়ার মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে তিনি কয়েকমাস ধরেই কারাগারে আছনে। তবে প্রতারণার মামলার রায় ঘোষণার সময় তাকে আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল।

রায় ঘোষণার পর তাকে আবার রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়েছে। আদালতে আসামিপক্ষের হয়ে মামলাটি পরিচালনা করেন রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী শামসাদ বেগম মিতালী। তিনি বলেন, আদালত আবু সাঈদ চাঁদকে ৩ বছরের কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। অন্য দুই আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে। এ মামলার সঙ্গে আবু সাঈদ চাঁদ কোনভাবে জড়িত না। এ রায়ের বিরুদ্ধে তারা আপিল করবেন।